ছাত্রলীগের নেতা হতে ৬০ নম্বরের পরীক্ষা !

সুরমা নিউজ ডেস্ক:
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া উপজেলায় ছাত্রলীগের ছয়টি ইউনিটের সম্মেলনের প্রস্তুতি শুরু হয়েছে। ওইসব ইউনিটে যারা নেতৃত্বে আসবেন তাদেরকে পরীক্ষায় বসতে হবে। তাদেরকে নেতা হতে হবে লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৪ (কসবা-আখাউড়া) আসনের সংসদ সদস্য আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হকের নির্দেশনা অনুযায়ী ‘কারাগারের রোজনামচা’ও ‘বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী’বই পড়া শুরু করেছেন পদ প্রত্যাশীরা। ওই দুইটি বই থেকেই পরীক্ষায় প্রশ্ন থাকবে। এ নিয়ে নেতাকর্মীদের মাঝে উৎসাহ উদ্দীপনা বিরাজ করছে।

পাঁচটি ইউনিয়ন ও জংশন শাখা সম্মেলনের প্রস্তুতি হিসেবে সভাপতি ও সম্পাদক পদ প্রত্যাশীদের মধ্যে ফরম বিক্রি শুরু হয়েছে। ফরম সংগ্রহকারীদেরকে জানিয়ে দেয়া হচ্ছে, ওই দুটি বই থেকে পরীক্ষা নেয়া হবে। একইসঙ্গে প্রত্যেকের ছাত্রত্ব সম্পর্কে নিশ্চিত হয়ে নেতৃত্ব বাছাই করা হবে।

উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. শাখাওয়াত হোসেন নয়ন সাংবাদিকদের জানান, নেতৃত্ব বাছাই করতে পরীক্ষা নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন আইনমন্ত্রী। সে মোতাবেক আমরা প্রত্যেক প্রার্থীকে দুটি বই পড়ার কথা বলে দিচ্ছি। নেতাকর্মীরাও বিষয়টি ভালোভাবে নিয়েছে। আশা করি যোগ্য নেতৃত্ব বাছাইয়ে এমন উদ্যোগ অগ্রনী ভূমিকা পালন করবে।

আখাউড়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মো. শরীফুল ইসলাম বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে বই পড়ে পরীক্ষা দিয়ে নেতা হওয়ার মতো বিষয়টি নিঃসন্দেহে একটি ভালো উদ্যোগ। এতে করে নতুন একটা চর্চা শুরু হবে। আমি চাই এর পাশাপাশি ছাত্রত্ব আছে ও মাদকমুক্ত নিশ্চিত হয়ে নেতৃত্ব বাছাই করা হোক।’

উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. শাহবুদ্দিন বেগ শাপলু বলেন, ‘আমরা সৃজনশীল পদ্ধতিতে লিখিত পরীক্ষা নিবো। পাশাপাশি মৌখিকও নেয়া হবে। সব মিলিয়ে ৬০ নম্বরের পরীক্ষা হতে পারে। স্বচ্ছতার জন্য আমরা এ বিষয়ে কঠোর থাকবো। আইনমন্ত্রী মহোদয়ের সঙ্গে পরামর্শ করে আমরা সিদ্ধান্ত নিবো।’

আরও