কুলাউড়ায় ওসির আশ্বাসে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ নিয়ন্ত্রণে

মৌলভীবাজার সংবাদদাতা:
মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার দিলদারপুর উচ্চবিদ্যালয়ের দুই শিক্ষার্থীর ওপর হামলার ঘটনায় জড়িত ছাত্রলীগের সাবেক নেতা আরেফিন তায়েফকে গ্রেপ্তারের দাবিতে বিক্ষোভে উত্তাল সাধারণ শিক্ষার্থীরা। বৃহস্পতিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) সকালে উপজেলার জয়চন্ডি ইউনিয়নের এই বিদ্যালয়ে পাঠদান কার্যক্রম বর্জন করে বিক্ষোভ করে তারা।
খবর পেয়ে কুলাউড়া থানা পুলিশের একটি দল পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে ব্যর্থ হয়। পরে থানার অফিসার ইনচার্জ ইয়ারদৌস হাসান সরেজমিন বিদ্যালয়ে উপস্থিত হয়ে ৪৮ ঘন্টার ভিতরে আসামীকে গ্রেফতারের আশ্বাস দিলে শিক্ষার্থীরা ক্লাসে ফিরে যায়।
উল্লেখ্য, গত ২২ সেপ্টেম্বর বেঞ্চে বসা নিয়ে বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির কয়েক জন শিক্ষার্থীর মধ্যে ঝগড়া হয়। পর দিন ২৩ সেপ্টেম্বর শিক্ষকেরা বিষয়টির সমাধান করে দেন। ওই দিন বিকেলে বিদ্যালয়ে ছুটির পর শিক্ষার্থীরা বাড়ি ফিরছিল। একপর্যায়ে স্থানীয় মিঠুপুর গ্রামের বাসিন্দা জয়চন্ডী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আরেফিন তায়েফের (২৮) নেতৃত্বে ছয়-সাত জন বহিরাগত যুবক মোটরসাইকেলে করে বিদ্যালয়ের প্রবেশ ফটকের সামনের সড়কে অবস্থান নেন। এ সময় তারা দেশীয় বিভিন্ন ধরনের অস্ত্র নিয়ে নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী মিরজান আলী (১৫) ও জামিল আহমদের (১৫) ওপর হামলা চালান। শিক্ষার্থীদের চিৎকার শুনে বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও আশপাশের লোকজন ছুটে এলে হামলাকারী যুবকেরা দ্রুত সটকে পড়েন। পরে আহত অবস্থায় দুই শিক্ষার্থীকে উদ্ধার করে কুলাউড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠানো হয়।
কুলাউড়া থানার ওসি ইয়ারদৌস হাসান জানান, বুধবার (২৫ সেপ্টেম্বর) রাতে আরোফিন তায়েফকে আসামী করে কুলাউড়া থানায় একটি মামলা করেছেন প্রধান শিক্ষক রুপিয়া বেগম। তদন্ত করে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
আরও