কমলগঞ্জে চাবাগানে শ্রমিককে কুপিয়ে হত্যা

সুরমা নিউজ ডেস্ক:
পূর্ব বিরোধের জের ধরে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার পদ্মছড়া চাবাগানে দা দিয়ে কুপিয়ে চা শ্রমিক জাহিদ মিয়াকে হত্যা করা হয়েছে। গতকাল রোববার বিকেলে উপজেলার মাধবপুর ইউনিয়নের পদ্মছড়া চা বাগানের প্ল্যান্টেশন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত চা শ্রমিক জাহিদ মিয়া (২২) মাধবপুর ইউনিয়নের পদ্মছড়া চাবাগানের রমজান মিয়ার ছেলে।

কমলগঞ্জ থানা সূত্রে জানা যায়, পদ্মছড়া চা বাগানের আপন মুন্ডা ওরফে দীপনের (২৭) সঙ্গে স্থানীয় একটি মেয়েকে কেন্দ্র করে নিহত চা শ্রমিক জাহিদ মিয়ার পূর্ব বিরোধ ছিল। রোববার বিকেলে দুজন গরু নিয়ে পদ্মছড়া চা বাগানের ৩ ও ৪ নম্বর প্ল্যান্টেশন এলাকার মাঝ দিয়ে যাওয়ার পথে আপন মুন্ডা ও তার এক সহযোগী রাম লাল কৈরী জাহিদ মিয়াকে দা দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয় লোকজন আশঙ্কাজনক অবস্থায় জাহিদকে উদ্ধার করে কমলগঞ্জ থানা থেকে হাসপাতালে নেওয়ার পথে বিকেল সাড়ে পাঁচটায় তিনি মারা যান।

পদ্মছড়া চা বাগানের একাধিক সূত্রে জানা যায়, আপন মুন্ডার বড় ভাই স্বপন মুন্ডা স্ত্রীকে হত্যা করে এখন মৌলভীবাজার কারাগারে রয়েছে।

এ ঘটনার দুই ঘণ্টার মধ্যে মাধবপুর ইউনিয়নের লঙ্গুরপার গ্রাম এলাকা থেকে আপন মুন্ডা ও রাম লাল কৈরীকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। রোববার রাতে নিহত চা শ্রমিক জাহিদের বাবা রমজান আলী বাদী হয়ে গ্রেপ্তার দুই ব্যক্তিসহ পাঁচজনকে আসামি করে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

কমলগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আরিফুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, পুলিশি তৎপরতায় হত্যার দুই ঘণ্টার মধ্যে প্রধান দুই আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে দুই আসামি হত্যার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন। পুলিশ হত্যায় ব্যবহৃত দা উদ্ধার করেছে।

ময়নাতদন্তের জন্য নিহত চা শ্রমিক জাহিদের লাশ সোমবার মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। একই সঙ্গে দুই আসামিকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে বলেও কমলগঞ্জ থানার ওসি জানান।

আরও