জুভেন্টাস-ইন্টার মিলান আগুনে লড়াই আজ

এই দ্বৈরথের আদুরে নাম ‘ডার্বি দ্য ইতালিয়া’। অর্থাৎ, ইতালিয়ান ডার্বি। জুভেন্টাস-ইন্টার মিলানের মুখোমুখি হওয়াটা যে দেশটির সবচেয়ে বড় ফুটবল রোমাঞ্চ, নামেই তো তা স্পষ্ট। আজ যুদ্ধ যুদ্ধ সাজের সেই আগুনে লড়াই।

এ দ্বৈরথে যুদ্ধের আবহ চিরকালীন; লড়াইয়ের ঝাঁজ চিরন্তন। কিন্তু প্রতিদ্বন্দ্বিতার মাত্রা যেন হালফিলে কমে গিয়েছিল অনেকটা। কমবে না কেন? ইতালিয়ান লিগকে যে নিজেদের একক সম্পত্তি বানিয়ে ফেলেছে জুভেন্টাস! টানা আট বছর সিরি ‘এ’ শিরোপা তাদের কাছ থেকে কেড়ে নিতে পারেনি কোনো দল। আর ইন্টার মিলানের সর্বশেষ হাসি ২০১০ সালে। যেবার হোসে মরিনহোর শিষ্যরা লিগের পাশাপাশি চ্যাম্পিয়নস লিগ এবং ইতালিয়ান কাপের সাফল্যে জিতেছিল ত্রিমুকুট। ২০১০-১১ মৌসুমের পর তো লিগের শীর্ষ তিনেই থাকতে পারেনি কখনো।

এবার ইন্টার চ্যালেঞ্জ জানোচ্ছ স্কুদেত্তোর। যে কারণে প্রায় এক দশক পর আজ ইতালিয়ান ডার্বি ফিরছে নিজস্বতার সবটুকুন নিয়ে। গত মৌসুমে লিগে চতুর্থ হয়েছিল যে দলটি, চ্যাম্পিয়ন জুভেন্টাসের চেয়ে পিছিয়ে ছিল ২১ পয়েন্ট—সেই ইন্টার যে এবার নতুন মৌসুমের মুখোমুখি লড়াইয়ের আগে লিগ টেবিলের শীর্ষে! সেটিও ছয় ম্যাচে শতভাগ জয়ের রেকর্ডে পূর্ণ ১৮ পয়েন্ট নিয়ে।

জুভরাও যে খুব খারাপ ফর্মে আছে, তা নয়। লিগের একটিমাত্র ম্যাচ ড্র করেছে। চ্যাম্পিয়নস লিগের সর্বশেষ ম্যাচেও জিতেছে ৩-০ গোলে। তবু যেন সব বারুদে বিস্ফোরণ ঘটছে না এখনো। দলের মতো অবস্থা সেরা তারকা ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোরও। ভালো খেলছেন, তবে চোখ ধাঁধানো নয়। কে জানে হয়তো ইন্টারের বিপেক্ষ এ ম্যাচের জন্যই জমিয়ে রেখেছেন সবটুকুন।

ইতালিয়ান লিগের মতো এত বড় ম্যাচ নেই আজ স্পেনে। তবে বার্সেলোনা-সেভিয়া ম্যাচের গুরুত্বও কম কিসে! বিশেষত বার্সার জন্য। তাদের মৌসুমের শুরুটা বড় ম্যাড়মেড়ে। তাতে নড়বড়ে হয়ে গেছে কোচ এর্নেস্তো ভালভের্দের চাকরি। বিকল্প হিসেবে রিভার প্লেতের কোচ মার্সেলো গ্যালার্দোর সঙ্গে নাকি এরই মধ্যে যোগাযোগ শুরু করেছে বার্সা কর্তৃপক্ষ। সে আগুনে আরো হাওয়া লাগত চ্যাম্পিয়নস লিগে ইন্টারের বিপক্ষে ম্যাচে পা হড়কালে। দ্বিতীয়ার্ধে লুই সুয়ারেসের দুটো জাদুকরী গোলে রক্ষা।

কিন্তু ভালভের্দের অবস্থান পোক্ত করার জন্য ধারাবাহিক ভালো ফলের বিকল্প নেই। লিগে যেমন ৭ ম্যাচে ১৩ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের চার নম্বরে থেকে এ রাউন্ড শুরু করছে বার্সা। ২ পয়েন্টে এগিয়ে থাকা শীর্ষ দল রিয়াল মাদ্রিদ গ্রানাদার সঙ্গে জিতলে এগিয়ে যাবে ৫ পয়েন্টে। চাপ তখন আরো বাড়বে বার্সার ওপর। আর প্রতিপক্ষ সেভিয়ার ফর্মও খারাপ না; লিগে ১৩ পয়েন্ট তাদেরও। খেলাটি নু ক্যাম্পে হওয়া আর ইনজুরি কাটিয়ে লিওনেল মেসির ফর্মে ফেরার প্রতিশ্রুতিই ম্যাচের আগে যা খানিকটা স্বস্তি দিচ্ছে ভালভের্দেকে। এএফপি

আরও