সুনামগঞ্জের দোয়ারা হাসপাতাল সড়কের বেহাল দশা

দোয়ারাবাজার উপজেলার সদর হাসপাতাল সড়ক ভেঙে খানা খন্দ ও গর্তে পরিণত হয়েছে। দোয়ারাবাজার ছাতক সড়কের একাংশ সুরমা নদীতে বিলীন হওয়ায় দোয়ারাবাজার হাসপাতাল সড়ক দিয়ে ছাতক দোয়ারা ও সিলেটগামী যানবাহন চলাচল করায় যোগাযোগব্যবস্থার চরম অবনতি হয়েছে। খানাখন্দের কারণে প্রতিদিন শত শত রোগি ভোগান্তি পোহাচ্ছে। হাসপাতাল সড়কই নয় আশ পাশের রাস্তাগুলোও একই অবস্থা।

গাড়ির শ্রমিক সংঘটনের সভাপতির উদ্যোগে ইতিপূর্বে দুইবার খানা খন্দ সংস্কার কাজ করা হয়েছে। এই সড়কটি হাসপাতালে নিজস্ব হওয়ার ফলে সড়কও জনপথ অথবা এলজিআরডি কেউই কাজ করছে না। হাসপাতাল থেকে দোয়ারাবাজার পর্যন্ত সড়কের বেহাল দশা দেখলে মনে হয় এই এলাকায় কোন জনপ্রতিনিধি কেউই সড়কের কাজ করতে রাজি নন। এই সড়ক ব্যবহারকারীদের দুর্ভোগ লাঘবে দ্রুত সংস্কারসহ স্থায়ী সমাধানের দাবি উঠেছে সচেতন মহল থেকে।

উপজেলা প্রকৌশলী হরজিত সরকার জানান, দোয়ারাবাজার হাসপাতাল সড়কের কাজ এডিপিতে আছে, বরাদ্দ এলে কাজ শুরু হবে। দোয়ারা-বাংলাবাজার সড়কের কাজ চলছে। কয়েকটা রাস্তার প্রস্তাবনা পাঠিয়েছি।

দোয়ারাবাজার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা ডা. আব্দুর রহিম জানান, উপজেলা পরিষদের প্রথম চেয়ারম্যান আমি ছিলাম সে সময় সব কাজ আমার হাতে হত। বর্তমানে উপজেলা পরিষদের হাতে সরকারি বরাদ্দ নেই। আমি আপ্রাণ চেষ্টায় আছি উপজেলার যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়ন করার। বরাদ্দ পেলে হাসপাতাল সড়ক সহ ভাঙা রাস্তাগুলোর কাজ করা হবে।

আরও