সর্বশেষ

ওসমানীনগরের একটি ওয়ার্ডে উপ-নির্বাচনকে ঘিরে উৎসবের আমেজ


ওসমানীনগরের দয়ামীর ইউপির ৭ নং ওয়ার্ডের উপ-নির্বাচনকে ঘিরে এলাকা জুড়ে উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে। উপ-নির্বাচনে এবার মোট ৮জন প্রার্থী বিভিন্ন প্রতিকে পরস্পরের মোকাবেলা করছেন। তবে ইতোমধ্যে একাধিক প্রার্থী কারচুপির আশঙ্কায় ভোট গ্রহণের দিন পর্যাপ্ত নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে নির্বাচন কমিশন বরাবর আবেদন জানিয়েছেন।

জানা যায়, চলতি বছরের ৭ এপ্রিল দয়ামীর ইউপির ৭ ওর্য়াডের নির্বাচিত সদস্য আব্দুল আজিজ মৃত্যুবরণ করলে নির্বাচন কমিশন ৩ সেপ্টেম্বর নতুন নির্বাচনের তপশিল ঘোষণা করে। আগামী ১৪ অক্টোম্বর নির্বাচনের তারিখ নির্ধারণ করা হয়। উক্ত নির্বাচনে রসরঞ্জন দাশ (টিউবওয়েল), ফয়ছল আহমদ (ক্রিকেট ব্যাট), শাহেদ আহমদ, (ঘুড়ি), নেছার আহমদ (মোরগ), অঞ্জন বৈদ্য (আপেল), আফছর আলী (তালা), আরব আলী বৈদ্যুতিক ফ্যান), লিপন আহমদ (ফুটবল) প্রতিকে প্রার্থী হয়েছেন। এবারের নির্বাচনের ওই ওয়ার্ডে ২৮৯০জন ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।

নিজ কুরুয়া এলাকার বাসিন্দা আব্দুল করিম (হিরন মিয়া) জানান, গত নির্বাচনে তার ভাই আব্দুল আজিজ ৬৬৩ ভোট পেয়ে ইউপি সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। তাঁর অকাল মৃত্যুতে এই ওয়ার্ডে আবার নির্বাচন হচ্ছে। তবে এবারের উপ-নির্বাচনে তার পরিবারের কোন প্রার্থী নেই।

ক্রিকেট ব্যাট প্রতিকের প্রার্থী ফয়ছল আহমদ বলেন, শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট অনুষ্ঠিত হলে আমি জয়ের ব্যাপারে আশাবাদি। ভোটারদের মধ্যে নিরাপত্তা নিয়ে সংশয় দেখা দেওয়ায় এ ব্যাপারে প্রশাসনকে সজাগ থাকার অনুরোধ করছি।

ঘুড়ি প্রতিকের প্রার্থী শাহেদ আহমদ বলেন, উপ-নির্বাচনকে ঘিরে গোটা ওর্য়াডে উৎসবমুখর পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছে। সুষ্ঠু নির্বাচন হলেও ঘুড়ি প্রতিকের বিজয় হবে বলেই আমি মনে করি।

উপজেলা রিটানিং কর্মকর্তা আবু লায়েজ দুলাল সুরমা নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটনেটকে বলেন, অবাধ ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট গ্রহণে আমরা আন্তরিক রয়েছি। এখন পর্যন্ত কোথাও কোন অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। প্রার্থীরা সবক্ষেত্রে আমাদের সহায়তা করছেন। ভোট কারচুপি ও ভোটারদের নিরাপত্তা নিয়ে প্রার্থীদের উদ্বেগের কোন কারণ নেই। পর্যান্ত নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হবে।

আরও