ব্রিটিশ এমপি হওয়ার স্বপ্নে বিভোর মৌলভীবাজারের বাবলিন

ব্রিটিশ পার্লামেন্টের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে ১২ ডিসেম্বর। পার্লামেন্টের আসন দখলে নাওয়া খাওয়া ভুলেছেন বাঙালি বংশোদ্ভূত ড. বাবলিন মল্লিক। ব্রিটিশ পার্লামেন্টের নির্বাচনে দেশটির তৃতীয় বৃহত্তম দল লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি (লিবডেম) থেকে মনোনয়ন লাভ করেছেন বাবলিন। দলটির পক্ষে কার্ডিফ সেন্ট্রাল আসনে প্রতিদিনই প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি।

মৌলভীবাজারের সদর উপজেলার মেয়ে মা-বাবার সঙ্গে যুক্তরাজ্যে পাড়ি জমান ১৯৮৬ সালে। পরিবারের সবচেয়ে কনিষ্ট সন্তান বাবলিনের বয়স তখন মাত্র ৬। এরপর লেখাপড়া আর ক্যারিয়ার গড়েছেন যুক্তরাজ্যেই। বায়ো-ক্যামেস্ট্রিতে স্নাতক বাবলিন কার্ডিফ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষক। বর্তমানে কাজ করছেন চ্যারিটি প্রতিষ্ঠান সাইট ক্যামরোর সিইও হিসেবে।

বাবলিনের বাবা মোহাম্মদ ফিরোজ ষাটের দশকে মৌলভীবাজার মহকুমা ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ছিলেন। এখন তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের জাতীয় পরিষদ সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। বাবলিন জানান, তার বাবা প্রবাসী হয়েও দেশের মায়া ছাড়তে পারেন না। সন্তানসহ পরিবারের সদস্যদের যুক্তরাজ্যে রেখে কেবল রাজনৈতিক দায়িত্ব পালন করার জন্য তিনি বেশিরভাগ সময়ই বাংলাদেশে থাকেন।

কার্ডিফে বাংলাদেশি কমিউনিটির জন্য শেকড় নামে বাংলা স্কুল প্রতিষ্ঠায় অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছেন বাবলিন। তিনি কমিউনিটির স্বার্থে বিভিন্ন দাতব্য সংস্থা ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের সঙ্গে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। বাবলিন আনুষ্ঠানিকভাবে রাজনীতিতে যোগ দেন ২০০৭ সালে। কার্ডিফ কাউন্টি কাউন্সিলের প্রথম বাঙালি ও মুসলিম নারী হিসেবে গত কাউন্সিল নির্বাচনে বিপুল ভোটে কাউন্টি কাউন্সিলার নির্বাচিত হন তিনি। সেই ধারাবাহিকতায় লিবারেল ডেমোক্রেটিক দল ড. বাবলিনকে এমপি প্রার্থী হিসেবে মনোনীত করেছে।

বাবলিন জানিয়েছেন অতীতে এই আসনে লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি (লিবডেম) প্রার্থীরা এমপি, অ্যাসেম্বলি মেম্বার ও কাউন্সিলর হিসেবে বেশ কয়েকবার নির্বাচিত হয়েছেন। আমিও জয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী।

এ আসনে নির্বাচিত হতে পারলে বাবলিনই হবেন লন্ডনের বাইরে থেকে নির্বাচিত প্রথম ব্রিটিশ বাংলাদেশি।

আরও