চীন থেকে ১৭১ জন বাংলাদেশিকে না ফেরানোর পরামর্শ রাষ্ট্রদূতের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক::চীনের হুবেই প্রদেশে অবস্থানরত ১৭১ বাংলাদেশিকে এখনই দেশে না ফেরানোর পরামর্শ দিয়েছেন ঢাকায় দেশটির রাষ্ট্রদূত জিমিং। ‘ঝুঁকি’ বিবেচনায় নিয়ে দেশের এবং জনগণের স্বার্থ চিন্তা করেই বাংলাদেশকে এমনটি ভাবার কথা বলেছেন তিনি।

সোমবার জাতীয় প্রেসক্লাবে ডিকাব আয়োজিত ‘ডিকাব টকে’ রাষ্ট্রদূত এ কথা বলেন।

করোনাভাইরাস ছড়ানোর পর গত ১ ফেব্রুয়ারি হুবেই প্রদেশের উহান শহর থেকে ৩১২ জন বাংলাদেশিকে বিশেষ একটি ফ্লাইটে ঢাকায় ফেরত আনা হয়।

রাষ্ট্রদূত লি জিমিং বলেন, ১৭১ জনকে এখনই ফেরত আনার প্রয়োজন নেই। তারা যেখানে আছেন, সেখানে সুরক্ষিতই আছেন। বর্তমানে হুবেই প্রদেশে ১৭১ বাংলাদেশি অবস্থান করছেন।

এ সময় চীনা রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘বাংলাদেশে যে বিষয়টি এখন সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন সেটি হলো, এখানে কেউ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলে তা দ্রুত নির্ধারণ করা। আমি এখানকার সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে যা জানতে পেরেছি, বর্তমানে বাংলাদেশে যে সক্ষমতা রয়েছে, তাতে কেউ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন কি না, তা জানতে দুই থেকে তিন দিন লেগে যায়, যা ঝুঁকিপূর্ণ।’

লি জিমিং আরো বলেন, ‘সম্প্রতি আমরা লক্ষ করেছি, চীন থেকে আসা তিন শতাধিক নাগরিককে আলাদা করে রাখা হয়েছিল, যা অত্যন্ত পেশাদারত্বের পরিচয়। কিন্তু তার পরও আমরা দেখতে পারছি, চীন থেকে বাংলাদেশে প্রতিদিনই ৩০ থেকে ৫০ জন নাগরিক আকাশপথে আসছেন। তাঁদের ব্যাপারে আসলে কী হচ্ছে?’

চীনা রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘আমরা ঢাকায় চায়নিজ অ্যাম্বাসি থেকে স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছি, চীনা নাগরিক যারাই বাংলাদেশে আসবেন, তাদের ১৪ দিন আলাদাভাবে থাকতে হবে। আমরা সেটাই পালন করছি। কিন্তু বাংলাদেশি নাগরিক যারা চীন থেকে আসছে, তাদের ব্যাপারে আরো অনেক কড়াকড়ি আরোপ করা প্রয়োজন।’

আরও