যে কারণে কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষায় যাচ্ছে না চবি

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) উদ্যোগে আগামী বছর থেকে দেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে কেন্দ্রীয়ভাবে ভর্তি পরীক্ষা নেয়ার পরিকল্পনা নেয়া হলেও এতে অংশ নিচ্ছে না চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি)। ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে আগের নিয়মেই ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। তবে ইউজিসির তত্ত্বাবধানে এ বছর কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষা সার্বিক কার্যক্রম পর্যবেক্ষণ করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেবে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

বৃহস্পতিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার কে এম নূর আহমেদ এসব তথ্য জানান। তিনি বলেন, শিগগিরই উপাচার্যের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধিদল ইউজিসির সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করে বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান তুলে ধরবেন।

এদিন উপাচার্য অধ্যাপক ড. শিরীণ আখতারের সভাপতিত্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৩৮তম একাডেমিক কাউন্সিলের সভা অনুষ্ঠিত। সভায় উপস্থিত অধিকাংশ শিক্ষক কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষায় অংশ না নেয়ার পক্ষে মতামত দেন বলে জানা যায়। তারা ইউজিসির উদ্যোগকে স্বাগত জানালেও অংশ না নেয়ার পক্ষে বিভিন্ন যুক্তি তুলে ধরেন।

যেসব কারণে কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষা অংশ নিচ্ছে তার মধ্যে ১৯৭৩ এর বিশ্ববিদ্যালয় অধ্যাদেশ ক্ষুণ্ন, বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্সের ভিন্নতা, প্রশ্নপত্র প্রণয়নে গুণগত মান বজায় না থাকা, ভর্তি জালিয়াতি ও অসদুপায়ের শঙ্কা অন্যতম। এছাড়া আঞ্চলিক হুমকি ও প্রভাবের বিষয়ও রয়েছে।

চবির ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার বলেন, একাডেমিক কাউন্সিলের সভায় শিক্ষকরা পক্ষে-বিপক্ষে মত দিয়েছেন। তবে অধিকাংশই বলছেন বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্সের ভিন্নতা আছে। এতে কেন্দ্রীয়ভাবে পরীক্ষা নিলে অসামঞ্জস্যতা তৈরি হবে। মেধার মূল্যায়ন যথাযথ হবে না। তাছাড়া একসাথে পরীক্ষা নিলে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে বাইরে পরীক্ষা কেন্দ্র করতে হবে। এতে ভর্তি জালিয়াতি ও অসদুপায়ের শঙ্কা এড়ানো কঠিন হবে। এসব কারণে এবার কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষায় অংশ না নিয়ে আমরা পুরো প্রক্রিয়াটি পর্যবেক্ষণ করব। এরপর সিদ্ধান্ত নেয়া হবে এতে যাবে কি যাবে না।

 

আরও