আমার গানে মানুষ এখনও পাগল-বললেন বাপি লাহিড়ী

সুপার সিঙ্গারের মঞ্চ জুড়ে কেবলই ডিস্কো কিং বাপি লাহিড়ীর গান। বাসন্তী হাইওয়ের ধারে টুয়েন্টি ফার্স্ট সেঞ্চুরি ফক্স স্টুডিওতে গিয়ে দেখা গেল সুপার সিঙ্গার-এর মঞ্চ তখন ভেসে যাচ্ছে বাপ্পি লাহিড়ীর সুরের মূর্ছনায়। চিরদিনই তুমি যে আমার, ইয়াদ আ রাহা হ্যায়, ডিস্কো ডান্সার, কে পাগ ঘুঙরু বাঁধ, হরি ওম হরি বাপ্পি-সঙ্গীতে মঞ্চ ভরপুর। কবিতা কৃষ্ণমূর্তি ,কুমার শানু, জিৎ গাঙ্গুলি তিন জনে বাপি লাহিড়ীর সঙ্গে গলা মিলিয়ে গেয়ে উঠলেন, তাঁরই সুরারোপিত আঁখে ছবির সেই গান ও লাল দোপাট্টেওয়ালি তেরা নাম তো বাতা।

সঞ্চালক যীশু সেনগুপ্তও তখন বাপি লাহিড়ীর গানের সঙ্গে গলা মেলাচ্ছিলেন। সেই সব সুপার ডুপার হিট গানই ফিরে এল এদিনের সুপার সিঙ্গারের মঞ্চে। দুটি পর্ব ধরে সব প্রতিযোগীই তাঁদের গানে গানে সম্মান জানালেন কিংবদন্তি বাপি লাহিড়িকে।

আর সেই দুই পর্বের শ্যুটের ফাঁকেই ডিস্কো কিং বাপি লাহিড়ী জানালেন, দেখতে দেখতে সঙ্গীত জীবনের পঞ্চাশ বছর হয়ে গেল। আমার কেরিয়ার শুরু হয়েছিল দিলীপ কুমার, দেব আনন্দ, অমিতাভ বচ্চন, মিঠুন চক্রবর্তী দিয়ে আর আজকের রণবীর সিং, আয়ূষ্মান খুরানা, বরুন ধাওয়ান সবার জন্যই গাইছি। অনেক বড় একটা কেরিয়ার।

বললেন, সম্প্রতি আয়ূষ্মানের লিপে আমার ইয়ার বিনা চ্যাইন কাহাঁ রে গানটি রিক্রিয়েট করেছেন এই সময়ের সুরকার তানিষ্ক বাগচী শুভ মঙ্গল জাদা সাবধান ছবিতে। আমার গান সব সময়ই চলে। এই গান শুনে মানুষ এখনও পাগল হয়ে যায়। এখন এই প্রজন্মের ছোটরা যখন আমার গান সঠিক ভাবে কন্ঠে তুলে নেয় তখন সত্যি একটা অন্য রকম অনুভূতি হয়। বললেন, আজকের মঞ্চে রাজদীপ বলে এক প্রতিযোগী আমার খুব পছন্দের একটা গান গাইল, কে পাগ ঘুঙরু বাঁধ।

খুব এনজয় করলাম। একটি মেয়ে জোয়ানি যানে মন গাইছিল। অসাধারণ গাইল, ফোক সঙের উপর ভাল দখল। আমি ওকে বলেছি মুম্বই এলে আমার সঙ্গে দেখা করতে। প্রতিযোগীদের ট্যালেন্ট দেখে অবাক হয়েছি। আর বিচারকরাও অসাধারণ। ওঁরা প্রত্যেকে গুনী মানুষ। কুমার শানু, কবিতা কৃষ্ণমূর্তি, জিৎ গাঙ্গুলির গাইডেন্সে প্রতিযোগীরা খুব ভাল ভাবে তৈরি হচ্ছে। সুপার সিঙ্গার বাপি লাহিড়ীর গান নিয়ে বিশেষ পর্ব আজ ও আগামী কাল স্টার জলসাতে।

 

আরও