সর্বশেষ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নতুন কূপ থেকে পরীক্ষামূলকভাবে উঠছে গ্যাস

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলায় নতুন একটি গ্যাস কূপ থেকে পরীক্ষামূলকভাবে গ্যাস উত্তোলন শুরু হয়েছে। মঙ্গলবার (৩ মার্চ) রাত ৭টা থেকে শুরু হয় উত্তোলন। পরবর্তী ৩৬ ঘণ্টা পর্যন্ত এই পরীক্ষামূলক গ্যাস উত্তোলন করা হবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম এক্সপ্লোরেশন অ্যান্ড প্রডাকশন কোম্পানি লিমিটেড (বাপেক্স) ওই কূপে অনুসন্ধান চালিয়ে গ্যাসের সন্ধান পায়।

সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, নবীনগর উপজেলার লাউর ফতেহপুর ইউনিয়নের হাজীপুর গ্রামের নতুন এ কূপটি কুমিল্লার শ্রীকাইল গ্যাস ফিল্ডের অন্তর্ভুক্ত। এই কূপ থেকে প্রতিদিন ১২ থেকে ১৫ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস উত্তোলন সম্ভব হবে। প্রসেস প্লান্টের মাধ্যমে শোধন করে এ গ্যাস জাতীয় গ্রিডে সরবরাহ করা হবে।

২০১৭ ও ২০১৮ সালে ওই এলাকায় ত্রি-মাত্রিক ভূতাত্ত্বিক জরিপ পরিচালনরা করে গ্যাসের অস্তিত্ব পাওয়া যায়। এরপর ২০১৯ সালের ২৮ অক্টোবর গ্যাসের অস্তিত্ব পেয়ে সেখানে খননকাজ শুরু করে বাপেক্স। গত ৩১ জানুয়ারি খনন শেষে বিভিন্ন ধরনের পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালানো হয়। মঙ্গলবার রাতে একটি পাইপের মুখে আগুন দিয়ে গ্যাসের চাপ পরীক্ষা করা হয়।

শ্রীকাইল পূর্ব-১ গ্যাস প্রকল্পের খনন কর্মকর্তা মুহাম্মদ মহসিন আলম জানান, প্রাথমিকভাবে কূপটিতে গ্যাসের ভালো চাপ পাওয়া যাচ্ছে। আরও অধিক পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর প্রসেসপ্লান্টে এই গ্যাস প্রক্রিয়াজাত করে জাতীয় গ্রিডে সরবরাহ করা হবে।

বাপেক্সের মহাব্যবস্থাপক (ভূ-তত্ত্ব) মো. আলমগীর হোসেন জানান, মাটির নিচে প্রায় তিন হাজার ৮০ মিটার গভীরে গ্যাসের অস্তিত্ব পাওয়া গেছে। গ্যাসের রিজার্ভ পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হচ্ছে। কূপ থেকে দৈনিক ১২ থেকে ১৫ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস জাতীয় গ্রিডে সরবরাহ করা সম্ভব হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

 

আরও