সর্বশেষ

মাইক্রোবাস স্ট্যান্ড উচ্ছেদে মেয়র আরিফ, শ্রমিকদের সড়ক অবরোধ

 সিলেট নগরের চৌহাট্টা এলাকায় অবৈধ মাইক্রোবাস স্ট্যান্ড উচ্ছেদে অভিযান চালিয়েছে সিলেট সিটি কর্পোরেশন (সিসিক)। বুধবার (১১ মার্চ) বেলা সোয়া ১১টার দিকে সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর নেতৃত্বে এ অভিযান চালানো হয়। এ সময় স্ট্যান্ডে থাকা গাড়িগুলো সরিয়ে নিতে বলা হলেও চালকরা গাড়ি সরাননি। পরে ক্ষিপ্ত হয়ে মেয়র আরিফ একটি গাড়ি ভাঙেন। অভিযানে থাকা সিসিকের কর্মকর্তারা কয়েকটি গাড়িকে ধাওয়া করেন।

এ ঘটনার পরপরই চৌহাট্টা এলাকায় সিভিল সার্জন অফিসের সামনে রাস্তায় গাড়ি রেখে সড়ক অবরোধ করেন মাইক্রোবাস শ্রমিকরা। তারা প্রায় ১৫ মিনিট সড়ক অবরোধ করে রাখলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে শ্রমিকদের সঙ্গে কথা বলে। পরে পুলিশের আশ্বাসে অবরোধ তুলে নেন তারা। এ সময় মেয়রের বিরুদ্ধে নানা স্লোগান দেন শ্রমিকরা। তাদের অভিযোগ মেয়র সন্ত্রাসী কায়দায় হামলা চালিয়ে গাড়ি ভাঙচুর করেছেন।

স্ট্যান্ডের মাইক্রোবাসচালক মো. শাহেদ আলী অভিযোগ করে বলেন, বেলা সোয়া ১১টার দিকে হঠাৎ সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী কয়েকজন লোক নিয়ে এসে মাইক্রোবাস স্ট্যান্ডে থাকা গাড়িগুলো ভাঙচুর শুরু করেন এবং সাহেল নামে এক শ্রমিককে মারধর করেন। পরে শ্রমিকরা প্রতিহত করতে এগিয়ে গেলে তারা চলে যান।

এ ব্যাপারে সিটি মেয়র আরিফুল চৌধুরী বলেন, নগরের চৌহাট্টা এলাকায় অবৈধভাবে ফুটপাত ও সড়কের ওপর মাইক্রোবাস স্ট্যান্ড বসিয়েছে শ্রমিকরা। সিটি কর্পোরেশন স্ট্যান্ডটি সরানোর জন্য একাধিকবার নোটিশ করলেও শ্রমিকরা গাড়ি সরাচ্ছেন না। এর ফলে ওই এলাকায় যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। এছাড়া বর্তমানে ওই এলাকায় বক্স ড্রেন নির্মাণ কাজ চলছে। অবৈধভাবে পার্ক করা গাড়ির জন্য উন্নয়ন কাজও বিঘ্নিত হচ্ছে। এ কারণে ওই এলাকায় উচ্ছেদ অভিযান চালানো হয়। শ্রমিকদের অভিযোগ সঠিক নয়।

কোতোয়ালি মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ সেলিম মিঞা জানান, রাস্তা পরিষ্কার নিয়ে চৌহাট্টায় মেয়রের সঙ্গে শ্রমিকদের ঝামেলা হয়েছে। এ সময় শ্রমিকরা সড়ক অবরোধের চেষ্টা করেন। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে শ্রমিকদের সড়ক থেকে সরিয়ে দেয়।

 

আরও