পাকিস্তানে গিয়ে বাংলাদেশের প্রশংসা করলেন মঈন

 পাকিস্তানের নিরাপত্তা নিয়ে অনেক দেশেরই আপত্তি আছে। এখনও এশিয়ার বাইরের দলগুলো পাকিস্তান সফরের ব্যাপারে আগ্রহী নয়। অথচ এরই মধ্যে শ্রীলঙ্কা আর বাংলাদেশ পাকিস্তানে ভালোভাবেই সফর শেষ করে এসেছে।

এবার ঘরের মাটিতে হচ্ছে পাকিস্তান সুপার লিগও (পিএসএল)। ফ্র্যাঞ্চাইজি এই টুর্নামেন্টে অনেক বিদেশি খেলোয়াড় খেলতে গেছেন, যাদের অনেকের জাতীয় দল হয়তো বরাবরই পাকিস্তান সফরের ব্যাপারে অনাগ্রহী।

এমনই একজন মঈন আলি। নিরাপত্তা নিয়ে নাক সিঁটকানো ভাবটা একটু বেশিই ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়ার মতো দলগুলোর। ইংল্যান্ডের অলরাউন্ডার মঈন পিএসএলে মুলতান সুলতানসের হয়ে খেললেও তার দল পাকিস্তান সফরে যাবে কি না, সেই নিশ্চয়তা দিতে পারছেন না।

যদিও ব্যক্তিগতভাবে মঈন মনে করেন, এখনকার পৃথিবীর কোনো জায়গাকেই নিরাপদ বলার উপায় নেই। নিরাপত্তার অজুহাত তুলে পাকিস্তান সফরে না যাওয়াটা দেশটির প্রতি অবিচার বলেই মনে করেন এই অলরাউন্ডার।

মঈন বলেন, আমি মনে করি (পাকিস্তানে নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন) একটু অবিচারই করা হয়, কারণ পৃথিবীতে আপনি কোথাও নিরাপদ নন। এটা যেকোনো মুহূর্তে যে কোনো জায়গায় ঘটতে পারে, এমনকি ইংল্যান্ডেও। এমনিতে সাধারণ ধারণা, এখানে (পাকিস্তানে) আসা অনিরাপদ।

২০১৬ সালে বাংলাদেশের নিরাপত্তা পরিস্থিতি নিয়েও প্রশ্ন উঠেছিল। হলি আর্টিজানে সন্ত্রাসী হামলার প্রসঙ্গ তুলে সেবার বাংলাদেশ সফরে আসতে রাজি হননি ইংল্যান্ডের কয়েকজন ক্রিকেটার। তবে নিরাপত্তা পর্যবেক্ষক দল সবুজ সংকেত দেওয়ার পর ঠিকই বাংলাদেশ সফরে আসে ইংল্যান্ড। কয়েকজন গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড় ছাড়াই ভালোভাবে শেষ করে সফরটি।

সেই প্রসঙ্গ টেনে বাংলাদেশের প্রশংসা করেন মঈন। ইংলিশ অলরাউন্ডার বলেন, আমার পাল্টা যুক্তি হলো, কোথাও নিরাপদ জায়গা নেই। হ্যাঁ, কিছু জায়গায় আপনি নিজেকে বেশি নিরাপদ ভাববেন। তবে এখন নিরাপত্তা ব্যবস্থা কিন্তু খুব উন্নত হয়েছে। কয়েক বছর আগে বাংলাদেশেও আমরা একই পরিস্থিতির সম্মুখীন হয়েছিলাম। কিছু ক্রিকেটার সেখানে সফরে যায়নি। কিন্তু ওখানে (নিরাপত্তা) দারুণ ব্যবস্থা ছিল।

 

আরও