খালেদার মুক্তি স্বস্তিকর : আসিফ নজরুল

বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাস সংক্রমিত রোগ কোভিড-১৯ আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলেছে। বাংলাদেশেও সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। এ পরিস্থিতিতে বয়স বিবেচনায় কারাবন্দী বিএনপি চেয়ারপাসন খালেদা জিয়ার সাজা ৬ মাসের জন্য স্থগিত রেখে তাকে মুক্তি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। সরকারের এই সিদ্ধান্তে স্বস্তি প্রকাশ করেছেন শিক্ষক ও কলামিস্ট আসিফ নজরুল।

আজ মঙ্গলবার বিকেলে ফেসবুকে একটি পোস্ট করে স্বস্তি প্রকাশ করেন আসিফ নজরুল। দেশেবিদেশে র পাঠকদের জন্য তার ফেসবুক পোস্টটি তুলে ধরা হলো।

খালেদার মুক্তি স্বস্তিকর

বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে মুক্তি দেয়া হচ্ছে। সাজা স্থগিত রেখে তাকে ছয় মাসের জন্য মুক্তি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানাই, সরকারকে ধন্যবাদ জানাই। বেগম জিয়ার মরনাপন্ন অবস্থা হয়েছে বলে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে কিনা এ নিয়ে সমাজে সন্দেহ থাকতে পারে। এমন ধারণাও থাকতে পারে যে করোনা পরিস্থিতির কারণে বাধ্য হয়ে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

যে বিবেচনায় উনি সরকারের নির্বাহী আদেশে মুক্তি পাচ্ছেন একই বিবেচনায় কেন উনি জামিন পাননি কিছুদিন আগেও – এই প্রশ্ন তুলতে পারে কেউ। আমি তবু সরকারের এ সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানাই। কারণ উনার মুক্তির পেছনে যে বিবেচনা থাকনা কেন, মুক্তির সিদ্ধান্তটি বেগম জিয়ার জন্য ভালো। আমাদের নেতা-নেত্রীরা একে অন্যের জন্য ভালো সিদ্ধান্ত নিলে তা দেশের জন্যও ভালো। বেগম জিয়া দ্রুত সুস্থতা কামনা করছি। কামনা করছি বড় দুদলের সম্পর্কের সুস্থতার।

এর আগে আজ মঙ্গলবার বিকেল ৪টার দিকে গুলশানে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক তার বাসভবনে জরুরি সংবাদ সম্মেলনে সরকারের খালেদা জিয়ার মুক্তি দেওয়ার সিদ্ধান্তের কথা জানান। বেশ কিছুদিন ধরে খালেদা জিয়ার জামিন ও মুক্তি নিয়ে আলোচনার মধ্যেই এই ঘোষণা দিলেন তিনি।

আনিসুল হক বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ ব্যাপারে নির্দেশ দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ হচ্ছে আইনি প্রক্রিয়ায় দুই শর্তে তার দণ্ডাদেশ স্থগিত রেখে তাকে মুক্তি দেওয়া হোক।

আইনমন্ত্রী বলেন, বয়স বিবেচনায়, মানবিক কারণে সরকার সদয় হয়ে দণ্ডাদেশ স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। তার সাজা স্থগিত করা হয়েছে ফৌজদারী কার্যবিধির ৪০১/১ ধারা অনুযায়ী, এটা আইনি প্রক্রিয়ায়।

চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে যেতে পারবেন কি না- সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের উত্তরে আইনমন্ত্রী বলেন, হাসপাতালে তো যেতেই পারবেন। কিন্তু হাসপাতালে যদি ভর্তিই হতে হয়, তাহলে বাংলাদেশের সবচেয়ে মানসম্পন্ন হাসপাতাল সেখানে তো তিনি আছেনই। হাসপাতালে তাকে ভর্তি হতে হলে সেটা অবস্থার প্রেক্ষিতে বোঝা যাবে। কিন্তু শর্ত হচ্ছে তিনি ঢাকাস্থ নিজ বাসায় থেকে চিকিৎসা গ্রহণ করবেন এবং উক্ত সময় তিনি দেশের বাইরে গমন করতে পারবেন না।

 

আরও