করোনা প্রতিরোধে যুক্তরাষ্ট্রকে সহযোগিতা করবে চীন

সুপার পাওয়ারের স্নায়ুযুদ্ধ। মহা শক্তিশালী আমেরিকাকে সহযোগিতার প্রস্তাব দিয়েছে চীন। করোনাভাইরাস সঙ্কটে পড়ে ট্রাম্প প্রত্যাখ্যান করতে পারেননি শি জিনপিংয়ের প্রস্তাব।

যুক্তরাষ্ট্রের করোনা পরিস্থিতিতে উদ্বেগ প্রকাশ করে শি বলেছেন, তথ্য ও অভিজ্ঞতা দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রকে সর্বোচ্চ সাহায্য করবে চীন।

শুক্রবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে ফোনে আলাপ করেন শি।

শির বরাত দিয়ে চীনের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম সিসিটিভি জানায়, শুরু থেকেই চীন করোনাভাইরাসের গতি প্রকৃতি থেকে শুরু করে সব ধরনের তথ্য প্রচারে স্বচ্ছ ও দায়িত্বশীল ছিল। অন্যান্য দেশের মতো যুক্তরাষ্ট্রকেও এ ব্যাপারে সর্বোচ্চ সহযোগিতা করা হবে।

যদিও গণমাধ্যমে করোনাভাইরাসকে ক্রমাগত চীনা ভাইরাস বা উহান ভাইরাস বলে সম্বোধন করে আসছিলেন ট্রাম্প ও অন্যান্য মার্কিন নেতারা। এর জবাবে শি বলেন, ভাইরাস কোনো সীমানা কিংবা জাতি জানে না। এটা সব মানুষের শত্রু। আন্তর্জাতিকভাবে সম্মিলিতভাবে এর বিরুদ্ধে লড়াই করতে হবে।

শুক্রবার ফোনে ট্রাম্পের সঙ্গে আলাপকালে শি বলেন, চীন ও যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্ক এখন সংকটের মধ্যে আছে। এই ধরনের দ্বন্দ্ব চলতে থাকলে দুই দেশই ক্ষতিগ্রস্ত হবে। এ সময় প্রয়োজন পারস্পরিক সহযোগিতা।

আশা করা যায়, চীন-যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্ক উন্নয়নের জন্য যুক্তরাষ্ট্র এগিয়ে আসবে। দুই দেশ একসঙ্গে মহামারি নিয়ন্ত্রণে শক্তিশালী ভূমিকা রাখবে বলেন তিনি।

চীনের আহ্বানকে স্বাগত জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। টুইটে তিনি বলেন, শিয়ের সঙ্গে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ে বিস্তারিত আলাপ হয়েছে। চীন অনেক শক্তিশালী উদ্যোগ নিয়েছে, ভাইরাসের গতিপ্রকৃতি সম্পর্কে চীনের বোঝাপড়াও ভালো। বর্তমানে আমরা একসঙ্গে কাজ করছি। বিনম্র শ্রদ্ধা।

 

আরও