এখনো করোনা মুক্ত সিলেট, তবে সতর্ক থাকার আহবান

সিলেটে এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাসের কোন রোগী পাওয়া যায়নি। প্রবাসীসহ যে কয়জনকে করোনা সন্দেহে সিলেট শহিদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল এদের মধ্যে ৫ জনের শরীরে এ ভাইরাস ধরা পড়েনি। বাকি ৩ জনের রিপোর্ট চলে আসবে দুই এক দিনের মধ্যে। সিলেটে কেউ এ রোগে আক্রান্ত না হলেও মানুষের মধ্যে সংশয়ের শেষ নেই। কারণ দেশব্যাপী করোনা প্রতিরোধে সরকার বড় প্রস্তুতি নিচ্ছে। সিলেটেও বসানো হচ্ছে পরীক্ষাগার। সিলেটে করোনার কোন রোগী সনাক্ত না হলেও সবাইকে সতর্ক থাকার আহবান জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সিলেটের বিভাগীয় কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক ডা. আনিসুর রহমান।

ডাক্তার আনিস সিলেটভিউকে বলেন, আজ দুই থেকে দেশে নতুন করে করোনাভাইরাসে কেউ আক্রান্ত হননি। সিলেটেও এখন পর্যন্ত মহামারী এ ভাইরাসে আক্রান্ত হননি কেউ। তবে এ মুহূর্তটা সবাইকে বেশ সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। একজনের কাছ থেকে অপর জনের দূরত্ব (৩ ফুট) বজায় রাখতে হবে। সরকার বাসাবাড়িতে সবাইকে অবস্থান নেয়ার নির্দেশ দিয়েছে। এটা মেনে চলা সবাইকে জরুরি।

এক প্রশ্নের ডাক্তার আনিস এ প্রতিবেদককে বলেন, আমাদের প্রস্তুতি নিয়ে রাখতে হবে। যেকোন সময় এই বিপদ আসতে পারে। স্পেনের কথা উল্লেখ করে এ প্রতিবেদককে তিনি আরো বলেন, পার্শ্ববর্তী দেশ ইটালি থেকে এক সপ্তাহের ব্যবধানে গোটা স্পেনে আজ মহামারী দেখা দিয়েছে। এসব ফলো করেও সারা বাংলাদেশে প্রস্তুতি নিয়ে রাখা হচ্ছে। সিলেটেও করোনাভাইরাসের পরীক্ষাগার করা হচ্ছে।

জানা গেছে, করোনাভাইরাস কারো শরীরে থাকলে প্রথমে এর লক্ষণ দেখা যায় না। মানুষকে দেখতে স্বাভাবিক লাগে। লক্ষণ দেখা দিতে কিছুটা সময় লাগে। কিন্তু এর ভেতরে এই ব্যক্তি যতজনের সংস্পর্শে যাবেন তাদের শরীরে এ রোগ ছড়িয়ে পড়ে। কারণ এ রোগ ছুঁয়াচে।

সুতরাং সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক সবাইকে মেনে চলতে পরামর্শ দিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সিলেটের বিভাগীয় কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক ডা. আনিসুর রহমান। সিলেটবাসীর প্রতি আহবান জানিয়ে তিনি আরো বলেন, সরকার ছুটি দিয়েছে। এরমানে নয় যে অযথা ঘোরাফেরা করবেন। অপ্রয়োজনীয় বাহিরে না গিয়ে নিজ নিজ ঘরে থাকলে এ রোগের বিস্তার ঠেকানো সম্ভব বলে তিনি মনে করেন।

 

আরও