করোনায় পরপারে ফরাসি ক্লাবের সাবেক সভাপতি

সেনেগালে ছিলেন। হঠাৎ করোনা পজিটিভ হিসেবে ধরা পড়েন ফরাসি ক্লাব মার্শেইয়ের সাবেক সভাপতি পেপে দিউফ। উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে নিয়ে যাওয়ার কথা ছিল ফ্রান্সে। কিন্তু বিমানে আর ওঠা হলো না।

অবস্থার অবনতি হলে হাসপাতালের জরুরি বিভাগে অক্সিজেন দিয়ে রাখা হয়েছিল দিউফকে। মঙ্গলবার করোনা যুদ্ধে হেরে পরপারে পারি জমিয়েছেন তিনি। মৃত্যুকালে বয়স হয়েছিল ৬৮ বছর।

দিউফের জন্ম চাদে। কিন্তু তার ফ্রান্স আর সেনেগালের নাগরিকত্ব ছিল। বহু গুণের অধিকারী দিউফ এক সময় করেছেন সাংবাদিকতাও। মার্শেইয়ের স্ট্যাট ভেলেদ্রোমে আবাস গড়ার আগে ছিলেন ফুটবল এজেন্ট।

মাত্র ১৮ বছর বয়সে মার্শেইতে আসেন দিউফ। ক্যারিয়ার শুরু করেছিলেন সেনাবাহিনীতে। পরে পেশা পরিবর্তন করে ঢুকে পড়েন ফুটবলে। এজেন্ট হিসেবে দীর্ঘদিন কাজ করার পর ২০০৫ থেকে ২০০৯ সাল পর্যন্ত মার্শেইয়ের সভাপতি ছিলেন। তার গড়ে দেয়া দলটিই ২০১০ সালে লিগ ওয়ান শিরোপা জেতে।

ফরাসি ক্লাবটিকে বদলে দেয়ার অন্যতম কারিগর মনে করা হয় দিউফকে। এমন একজনকে হারানোর সংবাদ শুনে গভীর শোক জানিয়েছে তার ক্লাব মার্শেই। এক বিবৃতিতে তারা বলেছে, ক্লাবের ইতিহাসের একজন সেরা স্থপতি হিসেবে পেপে মার্শেইয়ের মানুষদের হৃদয়ে সারাজীবন থাকবেন।

শোক জানিয়েছেন সেনেগালের রাষ্ট্রপতি মেকি সলও। টুইটার অ্যাকাউন্টে তাকে ক্রীড়া জগতের বিখ্যাত ব্যক্তিত্ব আখ্যা দিয়ে তিনি লিখেছেন, আমি পুরো জাতির পক্ষ থেকে তার পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি।

 

আরও