ফুটবল ছাড়া জীবন খুব কষ্টের

 করোনাভাইরাসের কারণে জাতীয় দলের ক্যাম্প বন্ধ। বন্ধ ক্লাবের ক্যাম্পও। পুরুষ ফুটবলারদের মতো দেশের নারী ফুটবলাররাও পার করছেন অলস সময়। পক্ষকালের হোম কোয়ারেন্টাইনে অস্থির হয়েছেন উঠেছেন ফুটবলারা।

জাতীয় নারী ফুটবল দলের ফরোয়ার্ড এবং অনূর্ধ্ব-১৬ দলের সাবেক অধিনায়ক কৃষ্ণা রানী সরকার এ সময়টাকে খুব কষ্টের উল্লেখ করেছেন। বলেছেন, ফুটবলকে বড্ড মিস করছি। যখন থেকে খেলি এতদিন কখনো ফুটবল ছেড়ে থাকিনি।

টাঙ্গাইলের গোপালপুর উপজেলার উত্তর পাথালিয়া গ্রামে নিজ বাড়ীতে অলস সময় কাটানো কৃষ্ণা রানী সরকার বলেন,খুব খারাপ লাগছে। এতদিন ফুটবল ছাড়া থাকা যায়? আসলেই ফুটবল ছাড়া জীবন খুব কষ্টের। জানি না কতদিন পর আবার ফুটবল নিয়ে নামতে পারবো।

করোনাভাইরাসের সময়টা কিভাবে কাটছে কৃষ্ণার? এক সময় ছিল ক্যাম্প ছুটি হলে ভালো লাগতো। আনন্দ হতো। কিন্তু এই ছুটি মোটেও ভালো লাগছে না। সব কিছু অনিশ্চয়তার মধ্যে। আর এতদিন তো কখনো ফুটবল ছেড়ে থাকিনি। সময় কাটতেই চায় না। টিভি দেখি, গল্প করি, খাই-দাই সময়টা এভাবেই যায় -বলছিলেন কৃষ্ণা।

ফিটনেস ধরে রাখার জন্য কোন কিছু করেন না? কৃষ্ণার জবাব, সত্যি কথা বলতে কি সেভাবে কিছু করা হয় না। তবে প্রতিদিন সকালে উঠে আমাদের বাড়ির পাশে যে পাকা সড়ক আছে সেখানে ১০-১৫ মিনিট হাঁটি। এর বাইরে কিছু না।

আপনার বাড়ির পাশে তো মাঠ আছে। উঠানেও তো বল নিয়ে একা অনুশীলন করতে পারেন তাই না? সুযোগ আছে বল নিয়ে একা অনুশীলনের; কিন্তু ওই মাঠে যাওয়া হয় না। আর উঠানে তেমন সুযোগ এখন নেই। কারণ, বাড়িতে ঘরের কাজ শেষ হয়নি- বলছিলেন কৃষ্ণা।

আপনি তো সিনিয়র খেলোয়াড়। অন্যদের খোঁজ-খবর নেন? কৃষ্ণা বলেন, আমি চেষ্টা করি অন্যদের খোঁজ নিতে। বিশেষ করে যারা জুনিয়র। আমাদেরও খোঁজ নেন স্যাররা (কোচ)। ছোটন স্যার তো (নারী ফুটবল দলের প্রধান কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন) মাঝে মধ্যেই ফোন করে খোঁজ নেন কেমন আছি, কি করছি। আমাদের ক্লাব বসুন্ধরা কিংস থেকেও কোচ, ম্যানেজার ফোন করে খোঁজ নেন।

 

আরও