করোনার মধ্যে নির্বাচন, দ. কোরিয়ায় ক্ষমতাসীনদের বিজয়

 করোনাভাইরাস মহামারি নিয়ে বিশ্বজুড়ে ভীতিকর পরিস্থিতির মধ্যেই গতকাল বুধবার দক্ষিণ কোরিয়ার জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে ভূমিধস বিজয় পেতে যাচ্ছে দেশটির ক্ষমতাসীন বামপন্থী দল। নির্বাচনের আংশিক ফলাফলের পর এই আভাসই পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছে এএফপি।

এএফপির প্রতিবেদন অনুযায়ী, করোনাভাইরাসের কারণে মানুষের মধ্যে আতঙ্কের মধ্যেও কোরিয়ার এবারের নির্বাচনে ৬৬ দশমিক ২ শতাংশ ভোট পড়েছে, যা দেশটির সংসদ নির্বাচনের ভোটে ১৯৯২ সালের পর সর্বোচ্চ। ফলে প্রেসিডেন্ট পদ ধরে রাখতে যাচ্ছেন মুন জা-ইন।

বর্তমান প্রেসিডেন্ট মুন জা-ইন এর ডেমোক্র্যাটিক পার্টি গত ১২ বছরের মধ্যে প্রথমবারের মতো একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেতে যাচ্ছে। যদিও কয়েক মাস আগেই মুন জা-ইন এর বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগ ওঠে এবং অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি কমে যাওয়ায় সমালোচনার মুখে পড়েন তিনি।

তবে নির্বাচনের আগে মহামারি করোনা মোকাবিলায় তার সরকারের সাফল্য ছাড়াও অন্তত ২০ দেশে করোনা পরীক্ষার কিট রফতানি মুন জা-ইন এর জন্য আশীর্বাদ হয়ে দেখা দেয়। মনে করা হচ্ছে, সাম্প্রতিক সময়ে মুন সরকারের সাফল্যের স্বীকৃতি এই ভোটে বিপুল বিজয়।

যুক্তরাষ্ট্রের ওহিও স্টে বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজনীতি বিষয়ক প্রখ্যাত অধ্যাপক মিনিসন কু এএফপিকে বলেন, অন্তত ২০ দেশের নেতার সঙ্গে ফোনালাপ ও তথাকথিত করোনাভাইরাস কূটনীতির কারণে কোরিয়ানরা এবারও প্রেসিডেন্ট মুনের প্রশাসনের প্রতি আস্থা রেখেছেন।

বিশ্লেষকেরা বলছেন, নতুন চাকরির সুযোগ তৈরি, বেতন-ভাতা এবং উত্তর কোরিয়ার নিউক্লিয়ার কর্মসূচি নির্বাচনে প্রভাব রাখার কথা ছিল। কিন্তু করোনা মোকাবিলায় দেশটির বর্তমান রাষ্ট্রপতি মুন জে ইন এর নেওয়া পদক্ষেপ বাকি সবকিছুকে আড়াল করে দিয়েছে।

 

আরও