ইচ্ছাকৃতভাবে ভাইরাস ছড়িয়ে থাকলে শাস্তি পেতে হবে, এবার চিনকে হুঁশিয়ারি ট্রাম্পের

 চিন ইচ্ছাকৃতভাবে করোনা ভাইরাস ছড়িয়েছে, এই প্রমাণ পেলেই তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব। এবার শি জিনপিংকে (Xi Jinping) সরাসরি হুঁশিয়ারি দিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প (Donald Trump )। তাঁর সাফ কথা, চিনের ভুলের জন্য এখন গোটা পৃথিবীকে ভুগতে হচ্ছে। ওরা চাইলেই ভাইরাসটিকে ছড়ানো থেকে আটকাতে পারত। কিন্তু সেটা করা হয়নি।

করোনা মহামারি নিয়ে চিন আর আমেরিকার টানাপড়েন নতুন কিছু নয়। এর আগে বারবার তথ্য গোপনের অভিযোগে চিনের বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। আন্তর্জাতিক মহলে এ নিয়ে দরবারও করেছেন তিনি। এবারে ট্রাম্পের অভিযোগ ইচ্ছাকৃতভাবে হোক বা অনিচ্ছাকৃত। চিনের ভুলেই আজ গোটা বিশ্ব বিপদে। তিনি বলছেন, অনেক রকমের অদ্ভুত জিনিস ঘটছে। তবে তদন্ত চলছে। আমরা প্রকৃত সত্য বের করে আনবই। আমি একটাই কথা বলতে চাই, যেখান থেকেই এই ভাইরাস তৈরি করা হোক বা আসুক, চিন থেকে এটা যে রূপেই ছড়াক না কেন ১৮৪টা দেশ এর জন্য এখন ভুগছে। এরপরই ট্রাম্প কমিউনিস্ট দেশটিকে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, ওরা যদি জেনেবুঝে এটা করে থাকে তাহলে ওদের শাস্তি পেতেই হবে। আর যদি ভুল হয়ে থাকে তাহলে সেটা ভুলই।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, আমরা অনেকদিন ধরেই চিনে ঢোকার চেষ্টা করছি। কিন্তু ওরা আমাদের অনুমতি দেয়নি। এখন বলছে, ওরা নাকি তদন্ত করছে। আমরাও আমাদের মতো করে তদন্ত করছি। ইচ্ছা করে এই ভাইরাস ছড়িয়ে থাকলে শাস্তি পেতেই হবে। একইসঙ্গে ইউহানের একটি গবেষণাগারকে যে ৩০ লক্ষ ৭০ হাজার ডলার আর্থিক অনুদান আমেরিকা দিত, তা শীঘ্রই দেওয়া বন্ধ করে দেওয়া হবে বলে ঘোষণা করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। ওই ভাইরাসটি ইউহানের গবেষণাগার থেকে কোথায় কারা নিয়ে গিয়েছিল, তা জানতে বেশ কিছুদিন ধরেই পূর্ণ তদন্ত শুরু করেছে আমেরিকা। ওই গবেষণাগারের সম্পর্কে যাবতীয় তথ্য সংগ্রহ করেছেন মার্কিন গোয়েন্দারা। এছাড়া এই মহামারি ছড়ানোর প্রাথমিক দিনগুলির বিষয়েও খোঁজখবর নিয়ে করোনা ছড়ানো নিয়ে চিনের প্রকৃত উদ্দেশ্য খতিয়ে দেখছে তারা।

 

আরও