প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের আকস্মিক ঘোষণা- যুক্তরাষ্ট্রে সাময়িকভাবে স্থগিত হতে যাচ্ছে অভিবাসন


মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ঘোষণা দিয়েছেন যে তিনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসন সাময়িকভাবে স্থগিতকরণ সংক্রান্ত এক নির্বাহী আদেশে  স্বাক্ষর করতে যাচ্ছেন। করোনা ভাইরাসকে অদৃশ্য শত্রু আখ্যায়িত করে ২০শে এপ্রিল 
অপরান্হে প্রদত্ত এক টুইট বার্তায় ডোনাল্ড ট্রাম্প উল্লেখ করেন, “আমি অদৃশ্য শত্রুর আক্রমন এবং একইসাথে যুক্তরাষ্ট্রের সকল মহতী নাগরিকদের চাকরী রক্ষার তাগিদে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসন সাময়িকভাবে স্থগিতকরণ সংক্রান্ত এক নির্বাহী আদেশে স্বাক্ষর করতে যাচ্ছি।”

অবশ্য এরূপ আদেশ প্রদানে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের আদৌ সাংবিধানিকে ক্ষমতা আছে কি না এবং ঘোষনাটির প্রভাব ঠিক এ মুহুর্তে কিরূপ হতে পারে তা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। সমালোচকদের মতে করোনা মহামারীর অজুহাতে ট্রাম্প প্রশাসন এখন অভিবাসন নীতির ব্যাপারে আরো কঠোর হতে চলেছে। সোমবার প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের অভিবাসন সংক্রান্ত এ ঘোষণাটি এমন এক সময়ে আসলো যখন হোয়াইট হাউস কতৃপক্ষ যুক্তি দেখিয়ে চলেছেন যে দেশটিতে করোনা মহামারীর সবচাইতে খারাপ সময়টি ইতিমধ্যে অতিক্রান্ত হয়ে গেছে এবং দেশটি এখন অর্থনৈতিক কর্মকান্ড পুনরায় শুরু করার ব্যাপারে প্রস্তুত। যুক্তরাষ্ট্রের অনেক অঙ্গরাজ্যে জনগণের চলাচলের উপর বিধিনিষেধ আরোপের সুবাদে অর্থনৈতিক কর্মকান্ড স্থবির হয়ে পড়েছে।
এক পরিসংখ্যান অনুযায়ী বিগত চার সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্রে প্রায় বিশ মিলিয়ন নাগরিক চাকরি হারিয়েছেন। উল্লেখ্য যে গত কয়েকদশকে যুক্তরাষ্ট্রের সার্বিক চাকরির বাজারে প্রায় সমসংখ্যক কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছিল।
জন হপকিন্স ইউনিভার্সিটির দেয়া তথ্যানুযায়ী যুক্তরাষ্ট্রে আট লক্ষেরও বেশী মানুষ কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়েছেন এবং এতে মৃতের সংখ্যা বিয়াল্লিশ হাজারেরও বেশী। উক্ত ইউনিভার্সিটি বিশ্বের কোভিড-১৯ মহামারী সংক্রান্ত তথ্যাদি

আরও