ইতালিতে ফিরছেন আটকেপড়া ২৬৫ বাংলাদেশি

করোনাভাইরাসের ভয়াবহতা কাটিয়ে উঠেছে ইউরোপ। পরিস্থিতির উন্নতি হওয়ায় ধীরে ধীরে লকডাউন শিথিল করছে অঞ্চলটির বিভিন্ন দেশ। ফলে বাংলাদেশিরা ফিরতে শুরু করেছেন ইউরোপের বিভিন্ন দেশে।

দেশে আটকেপড়া ২৬৫ বাংলাদেশি অবশেষে বাংলাদেশ বিমানের একটি বিশেষ ফ্লাইটে (চার্টার্ড) আগামী ১২ জুন ঢাকা থেকে ইতালির উদ্দেশ্যে রওনা দেবেন।

বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ বিমানের ওয়েবসাইটে এ সংক্রান্ত এক বিজ্ঞপ্তি জারী করা হয়েছে। এতে ২৬৫ জনের যাত্রীর তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেন বিমান অফিস ঢাকা মতিঝিলের সহকারী (বাণিজ্যিক) আবুল কাশেম।

তিনি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে জানান, ইতোমধ্যে ২৬৫ যাত্রীর একটি তালিকা বিমান অফিসের কাছে রয়েছে যা ওয়েবসাইটে দেওয়া হয়েছে। সব ঠিক থাকলে আগামী ১২ জুন ইতালির উদ্দেশ্য ঢাকা ত্যাগ করবে বিমান বাংলাদেশ। তবে পুরো বিষয়টি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অধীনে পরিচালিত হচ্ছে। সব কিছু নির্ভর করছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উপর।

জানা গেছে, আটকেপড়া বাংলাদেশিদের ফেরত আনতে ইতালি ভিসেন্সা প্রবাসী সমাজসেবক রফিকুল ইসলাম মান্না সর্দারের একক উদ্যোগে প্রবাসীরা এ সুযোগটি পেলেন। ইংল্যান্ড, আমেরিকায় যখন চার্টার্ড বিমানে আটকেপড়া প্রবাসীরা নিজ কর্মস্থলে আসার সুযোগ পায় তখন ইতালির বিপুল সংখ্যক প্রবাসীরা চার্টার্ড বিমানের জন্য রোম কমিউনিটির অনেক প্রভাবশালী সামাজিক ব্যক্তিদের সাথে যোগাযোগের মাধ্যমে সাড়া দেন ভিসেন্সা প্রবাসী মান্নান সর্দার।

তিনি গত ২৭ মে ফেইসবুক লাইভে এসে চার্টার্ড বিমানের ব্যবস্থা করার আশ্বাস দেন। ২৬৫ জনের তালিকা করার জন্য সবার সহযোগিতা চান। তাকে সহায়তার জন্য এগিয়ে আসেন একজন প্রবাসী সাংবাদিক। তিনি যখন লাইভে আসেন এরপরই বিষয়টি ভাইরাল হয়ে যায়। এরই পরিপ্রেক্ষিতে ২৭ মে থেকে ১ জুন পর্যন্ত তালিকা চূড়ান্ত করে মূলপরিকল্পনাকারী মান্নান সরদার বাংলাদেশ বিমানের একটি ফ্লাইটের জন্য আবেদন করেন।

তার আবেদনটি অত্যন্ত গুরুত্বসহকারে বাংলাদেশ বিমানের চেয়ারম্যান আমলে নেন। তিনি তড়িৎ গতিতে চার্টার্ড বিমান পাঠানোর জন্য বাংলাদেশ ও ইতালির সরকারের অনুমোদন নেয়। সমস্ত প্রক্রিয়া শেষ করে গত ৪ জুন বাংলাদেশ বিমানের ওয়েবসাইটে দেয় হয়। এ সংবাদে স্বস্তি ফিরে আসে আটকেপড়া প্রবাসীদের মাঝে।

এ ব্যাপারে ২৬৫ জনের একজন ইতালি প্রবাসী অ্যাড আনিসুজ্জামান বলেন, ভিসেন্সার মান্নান সর্দারের একক প্রচেষ্টায় ২৬৫ জন যাত্রী ইতালি যেতে পারবে এটা সত্যিই আনন্দের। যারা এই প্রক্রিয়ায় সহযোগিতা করেছে তাদের প্রতি আমরা কৃতজ্ঞ।

ভিসেন্সায় বসবাসরত ব্যবসায়ী মান্নান সর্দার বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে গত তিন মাস ধরে কয়েক হাজার বাংলাদেশি আটকা পড়ে দেশে। এদের মধ্যে কারো স্টে -পারমিট মেয়াদোত্তীর্ণ হয়ে গেছে। কারো পরিবার ইতালিতে এ রকম নানা ধরনের সমস্যার কথা ভেবে কমিউনিটি নেতাদের কোনো সহযোগিতা না পেয়ে বাংলাদেশ বিমানের পরিচালকের সাথে কথা বলি।

প্রথমে তিনি রাজি হননি। পরে বাংলাদেশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সহযোগিতায় ও ইতালি সরকারের অনুমতিক্রমে চ্যার্টার্ড ফ্লাইট ১২ জুন ইতালির রোমে আসবে ২৬৫ বাংলাদেশি। তিনি কমিউনিটি নেতাদের উদ্দেশ্য বলেন, বিপর্যস্ত মানুষদের জন্য এগিয়ে আসা স্থানীয় নেতাদের কর্তব্য।

উল্লেখ্য, আজ রোববার থেকে (৭ জুন) তালিকায় অন্তর্ভুক্তরা বাংলাদেশ বিমানের ঢাকা, চট্রগ্রাম, সিলেটের অফিস থেকে টিকিট সংগ্রহ করতে পারবেন।

 

আরও