অঙ্কিতার বাড়ির দরজায় এখনও সুশান্তের নাম

সুশান্ত সিং এর আত্মহত্যা! এক সপ্তাহ ধরে খবরের শিরোনামে থেকেছে শুধু এই ঘটনা। বারবার আলোচনায় ফিরে ফিরে আসছে সুশান্তের পুরোনো সম্পর্ক, ঘনিষ্ঠতা, অবসাদ, বলিউডের স্বজনপোষণ সংস্কৃতির শিকার হওয়ার প্রসঙ্গ। বিতর্ক উসকে দিয়েছে একের পর এক তারকা-পরিচালকের সোশ্যাল মিডিয়া পোস্ট। মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে যাওয়ার পর প্রায় সাত দিন কেটে গিয়েছে। তবে শনিবার পরিচালক সন্দীপ সিং এর একটি পোস্ট ঘিরে ফের চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে বলিউডে।

সুশান্তের সাবেক প্রেমিকা অঙ্কিতা লোখান্ডের সঙ্গে প্রয়াত অভিনেতা এবং নিজের একটি ছবি পোস্ট করে স্মৃতিমেদুর সন্দীপ লেখেন, যত দিন যাচ্ছে, আমার মনে হচ্ছে, অঙ্কিতা, আমরা যদি আরও একটু চেষ্টা করতাম, তাহলে হয়তো এই পরিণতি এড়ানো যেত। তোমরা আলাদা হওয়ার পরেও তো তুমি শুধু সুশান্তের ভালোই চেয়েছিলে। ওকে খুশি দেখতে চেয়েছিলে। তুমি সত্যিই ওকে ভালোবাসতে। আজও বাড়ির নেমপ্লেট থেকে সুশান্তের নামটা সরাও নি।

লোখান্ডওয়ালার দিনগুলো খুব মনে পড়ে। আমরা তিনজন একসঙ্গে থাকতাম, একসঙ্গে রাঁধা, খাওয়া, সেই এসি থেকে জল পড়া, আমাদের লং ড্রাইভে গোয়া যাওয়া। আমরা তিনজন একে অন্যের পাশে কীভাবে থাকতাম। তোমরা স্বপ্ন দেখেছিলে বিয়ে করার! ও যদি তোমায় থাকতে দিত, এই দিনটা দেখতে হতো না। তুমি ওর প্রেমিকা ছিলে, স্ত্রী ছিলে, মা ছিলে, বন্ধু ছিলে। ওর মুখে হাসি ফোটাতে পারতে তুমিই। কীভাবে ফিরে পাব দিনগুলো?

সন্দীপ আরও লেখেন, আমি আজও মনে করি, তোমরা দুজন দুজনের জন্যই ছিলে। তোমার মতো ভালও ওকে কেউ বাসতে পারত না।

শুক্রবার জানা গেছে, শেষ ৬ মাসে মুম্বাইয়ের এক মনোরোগ বিশেষজ্ঞের কাছে বার তিনেক গিয়েছিলেন সুশান্ত। সেখানেও চিকিৎসককে তিনি জানিয়েছিলেন, অঙ্কিতার সঙ্গে বিচ্ছেদের পর তিনি নিজের ভুল বুঝতে পেরেছেন। অঙ্কিতা ছাড়া কেউই তাঁকে অত ভালোবাসতে পারেনি বলে আক্ষেপও করেছিলেন সুশান্ত।

 

আরও