সর্বশেষ

১১ চীনা কোম্পানির ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞা

১১ চীনা কোম্পানির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। উইঘুর সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধে মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগে ওই প্রতিষ্ঠানগুলোকে কালো তালিকাভূক্ত করা হয়েছে।

সোমবার যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এক ঘোষণায় এ তথ্য নিশ্চিত করেছে। বহুদিন ধরেই বেইজিং পশ্চিমাঞ্চলে উইঘুর সম্প্রদায়ের ওপর নির্যাতন এবং মানবাধিকার লঙ্ঘন করছে বলে ওয়াশিংটন, অন্যান্য পশ্চিমা দেশ এবং মানবাধিকার সংগঠনগুলো অভিযোগ করে আসছে।

এর আগে চীনের শক্তিশালী পলিটব্যুরোর এক সদস্যসহ দেশটির চার কর্মকর্তার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে যুক্তরাষ্ট্র। তাদের বিরুদ্ধে উইঘুরসহ অন্যান্য জাতিগত সংখ্যালঘুদের ওপর নজরদারি, বন্দী করা, জোরপূর্বক দীক্ষাদানের মতো গুরুতর অভিযোগ আনা হয়।

জোরপূর্বক শ্রমদানে বাধ্য করায় চ্যাংজি এসকুয়েল টেক্সটাইল, হেফেই বিটল্যান্ড ইনফরফেশন টেকনোলজি, হেফেই মেইলিং, হেতিয়ান হাওলিন হেয়ার অ্যাক্সেসোরিজ, হেতিয়ান তাইদা অ্যাপারেল, কেটিকে গ্রুপ, নানজিং সিনার্জি টেক্সটাইলস, ন্যানচ্যাং ও-ফিল্ম টেক এবং তানিউয়ান টেকনোলজির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে মার্কিন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।

অপরদিকে উইঘুরদের ওপর মানবাধিকার লঙ্ঘনে সম্পৃক্ততার অভিযোগে শিনজিয়াং সিল্ক রোড এবং বেইজিং লিউহের ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞা আনা হয়েছে।

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও চলতি মাসের শুরুতে উইঘুরদের প্রতি চীনের মানবাধিকার লঙ্ঘনের তীব্র নিন্দা জানান। তিনি এই ঘটনাকে শতাব্দীর কলঙ্ক হিসেবে উল্লেখ করেছেন। তবে প্রথম থেকেই সব ধরনের অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে বেইজিং।

 

আরও