করোনায় আক্রান্ত অনেকে নিজ থেকেই সেরে উঠছেন, বলছেন ভারতীয় চিকিৎসকরা

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন, অথচ বুঝতে পারেননি, আক্রান্ত হওয়ার পর আপনাআপনি সেরেও উঠেছেন- এমনটা কি সম্ভব? চিকিৎসকরা বলছেন, হ্যাঁ, আশ্চর্যজনক হলেও এটি সম্ভব!

শুক্রবার ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, সম্প্রতি দেশটিতে সরকারি অনুমোদন নিয়ে অ্যান্টিবডি টেস্ট শুরু করেছে বেসরকারি ল্যাব থাইরোকেয়ার। তাদের সমীক্ষায় দেখা গেছে, ভারতে করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর নিজ থেকেই সুস্থ হয়ে ওঠা ব্যক্তির সংখ্যা রয়েছে অন্তত ১৮ কোটি।

এ বিষয়ে ফুসফুস রোগ বিশেষজ্ঞ ডা. ধীমান গঙ্গোপাধ্যায় বলেন, সবার শরীরে এক পরিমাণে ভাইরাস প্রবেশ করে না। কারও শরীরে হয়তো মাত্র তিনটি ভাইরাস প্রবেশ করতে পারে, কারও আবার তিন হাজার। শরীরে প্রবেশকারী ভাইরাসের এই সংখ্যার পরিমাপকে ভাইরাল লোড বলা হয়। ভাইরাল লোড কম হলে অনেক সময় আপনাআপনিই সুস্থ হয়ে ওঠা সম্ভব।

তিনি বলেন, ভারতের ওই ১৮ কোটি ব্যক্তির শরীরে হয়তো খুবই সামান্য পরিমাণে ভাইরাস প্রবেশ করেছিল, শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা সেই ভাইরাসকে ঠেকিয়ে দিয়েছে। তাছাড়া, সব করোনাভাইরাসের শক্তি এক নয়। তাদের শরীরে প্রবেশ করা ভাইরাসগুলো হয়তো দুর্বল ছিল, এ কারণে বুঝে ওঠার আগেই সেরে উঠেছেন।

তবে মানুষজন আপনাআপনি সেরে উঠলেও সাবধান থাকার পরামর্শ দিয়েছেন এ চিকিৎসক। ডা. অরিন্দম বলেন, এমন যেন না হয় যে, এই সমীক্ষা দেখে সবাই ভেবে বসলেন, আমাদের তো করোনা একা একাই সেরে যাবে, চিকিৎসকের কাছে যাওয়ার প্রয়োজন নেই। তাহলে হিতে বিপরীত হতে পারে।

এসময় থাইরোকেয়ারের নমুনা পরীক্ষার পদ্ধতি নিয়ে প্রশ্ন তুলে ইন্ডিয়ান কাউন্সিল ফর মেডিক্যাল রিসার্চকে ১৮ কোটি মানুষ সুস্থ হয়ে ওঠার তথ্য যাচাইয়েরও অনুরোধ জানান ভারতের এ চিকিৎসক।

 

আরও