হবিগঞ্জে নারীকে গলা কটে হত্যা, আটক ২

হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলায় ঘুমন্ত অবস্থায় ছালেমা বেগম (৪৫) নামে এক নারীকে তার নিজ বাড়িতে হত্যা করা হয়েছে। গতকাল শনিবার রাতে উপজেলার করগাও গ্রামে ঘটনাটি ঘটে। পুলিশ এ ঘটনার জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দুজনকে আটক করেছে।

ছালেমা বেগম ৭ সন্তানের মা। তার স্বামীর নাম মিলন মিয়া। তিনি জানান, তাদের বাড়ির দুটি ঘরের একটিতে নিজে ঘুমিয়ে ছিলেন। অন্যটিতে তার সন্তান শান্তাকে নিয়ে ঘুমিয়েছিলেন ছালেমা। রাতের কোনো এক সময় দুর্বৃত্তরা ঘরে ঢোকে। তারা ছালেমার গলা কেটে হত্যা করে এবং নগদ ১ লাখ ২০ হাজার টাকা নিয়ে পালিয়ে যায়। ভোরে শান্তার চিৎকার শুনে মিলন ও আশেপাশের প্রতিবেশীরা ছুটে আসেন। তারা ছালেমাকে নিথর অবস্থায় দেখতে পান। এ সময় তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখম ও গলা কাটা দেখতে পান তারা।

নবীগঞ্জ থানার ভারপ্রপাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজিজুর রহমান জানান, ছালেমা বেগমকে নবীগঞ্জ হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। ওসি বলেন, হত্যাকাণ্ডটি রহস্যজনক। নিহতের স্বামীর সঙ্গে একই গ্রামের কয়েকজনের আগে থেকে বিরোধ রয়েছে। সেই বিরোধের জেরে ছালেমা বলি হলেন কী না বা এ ঘটনার পেছনে অন্য কোনো ঘটনা লুকিয়ে রয়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দুই যুবককে আটক করা হয়েছে বলে জানান ওসি আজিজুর রহমান। তবে তাদের নাম জানাননি তিনি।

লাশ ময়নাতদন্তের জন্য হবিগঞ্জ আধুনিক হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে জানিয়ে হবিগঞ্জের জ্যেষ্ঠ এএসপি পারভেজ আলম চৌধুরী বলেন, খুব দ্রুত ঘটনার রহস্য বের করা হবে।

আরও