বিএনপি-জামায়াত রেলকে ধ্বংস করে গেছে: রেলপথ মন্ত্রী

বর্তমান সরকার রেলের আধুনিকায়ন করে জন ও কৃষি বান্ধব করতে কাজ করছে বলে জানিয়েছেন রেলপথ মন্ত্রী অ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাম সুজন। তিনি বলেন, বিএনপি-জামায়াত সরকার কর্মচারী ছাঁটাই করে রেল মন্ত্রণালয়কে ধ্বংস করে দিয়েছিলো। তারা খুলনা থেকে বাগেরহাট পর্যন্ত রেললাইন তুলে ফেলে পাকা রাস্তা তৈরি করেছিলো। রেল হবে কৃষি ও জনবান্ধব। তাই নীলফামারীর সৈয়দপুর রেলওয়ে কারখানায় আধুনিক ও যুগোপযোগী করে যাত্রীবাহী কোচ তৈরির একটি ক্যারেজ তৈরি করা হচ্ছে। বিএনপির আমলে ওই কারখানার এক হাজার ৪০০ কর্মকর্তা-কর্মচারী কাজ করতো। আর এখন সেখানকার জনবল চার হাজার।

বৃহস্পতিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ১১টার দিকে বাংলাদেশ সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্ট ও নীলফামারী প্রেস ক্লাবের আয়োজনে স্থানীয় শিল্পকলা অডিটোরিয়ামে করোনাকালে নীলফামারীর সাংবাদিকদের প্রথম পর্যায়ে আর্থিক সহযোগিতার চেক প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ সব কথা বলেন।

এসময় রেলমন্ত্রী জানান, করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে আগামী ১৬ ডিসেম্বর অথবা ২৬ মার্চ চিলাহাটি-হলদিবাড়ি হয়ে ভারতের সঙ্গে রেল সংযোগের উদ্বোধন করা হবে।

তিনি আরও বলেন, দেশে বিরোধী দল থাকবে, তবে তাদের কাজ শুধু বিরোধিতা করাই নয়। বৈশ্বিক করোনা মহামারিতে মানুষের পাশে দাঁড়ানো তো দূরের কথা, সরকারের সমালোচনা নিয়েই তারা ব্যস্ত ছিল।

মন্ত্রী বলেন, বৈশ্বিক করোনা মহামারিতে দেশের সব পেশার মানুষ যখন অস্থির। ঠিক সেই সময় সম্মুখ সারিতে ডাক্তার, নার্স, পুলিশ ও সাংবাদিকরা কাজ করেছেন। সাংবাদিকরা সংবাদ সংগ্রহ করে মানুষকে সচেতন করেছেন। এই মহামারিতে আমরা দেশের চার হাজার ৫০০ মানুষকে হারিয়েছি। তবে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমার মহামারি ওভারকাম করতে পেরেছি।

চেক প্রদান অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক হাফিজুর রহমান চৌধুরীর সভাপতিত্বে প্রধান আলোচক হিসেবে ভিডিও কনফারেন্সে বক্তব্য রাখেন নীলফামারী-২ আসনের সংসদ সদস্য আসাদুজ্জামান নুর, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপার মোখলেছুর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগর সভাপতি দেওয়ান কামাল আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মমতাজুল হক, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক জনকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক মেহেদী হাসান প্রমুখ।

 

আরও