আল-আকসায় ইসরায়েলি হামলা, আহত বেড়ে ১৮৪

 জেরুজালেমের মালিকানাকে কেন্দ্র করে আবারও উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে ইসরায়েল ও ফিলিস্তিন। কয়েক সপ্তাহ ধরেই সেখানে উত্তেজনা বিরাজ করছে। প্রায় প্রতিদিনই সংঘাতের খবর পাওয়া যাচ্ছে অধিকৃত বিভিন্ন অঞ্চল থেকে। এরই মধ্যে শুক্রবার উত্তেজনা চরমে ওঠে। এদিন আল-আকসা মসজিদ এবং অধিকৃত পূর্ব জেরুজালেমে ইসরায়েলি পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে ১৮৪ জনের বেশি মুসল্লি আহত হয়েছে।

খবরে বলা হয়েছে, এদিন জুমাতুল বিদা উপলক্ষ্যে হাজার হাজার মুসল্লি আল-আকসা মসজিদে নামাজ পড়তে আসেন। অনেকেই আবার বিক্ষোভে অংশ নেয়ার জন্য মসজিদে অবস্থান করেন। ইসরায়েলি দখলদাররা যেসব ফিলিস্তিনিদের তাদের বাড়ি থেকে উচ্ছেদ করছে সেটার সমর্থনে ইসরায়েলি বসতি স্থাপনকারীদের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করতে থাকে তারা।

শেখ জাররাহ’য় উচ্ছেদের আশঙ্কায় থাকা ফিলিস্তিনি পরিবারের সমর্থনে গত সপ্তাহ থেকে ফিলিস্তিনি এবং আন্তর্জাতিক সংহতি কর্মীরা রাত্রিকালীন মিছিল করে যাচ্ছে। কিন্তু এসব বিক্ষোভকারীদের ব্যাপারে কঠোর অবস্থান নিয়েছে ইসরায়েলি বর্ডার পুলিশ এবং তাদের বাহিনী। তারা বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে জলকামান, কাঁদানে গ্যাস, রাবার বুলেট এবং শক গ্রেনেড ব্যবহার করে। গ্রেপ্তার করা হয়েছে কয়েক ডজন ফিলিস্তিনিকে।

এদিকে অধিকৃত পূর্ব জেরুজালেম থেকে ফিলিস্তিনিদের জোরপূর্বক উচ্ছেদ বন্ধে ইসরায়েলের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘ। তাদের কর্মকাণ্ড ‘যুদ্ধাপরাধের’ সমান হতে পারে বলেও সতর্ক করে দিয়েছে সংস্থাটি। জাতিসংঘের মানবাধিকার সংস্থার মুখপাত্র রুপার্ট কোলভিল বলেছেন, আমরা সব ধরনের জোরপূর্বকে উচ্ছেদ তাৎক্ষণিক বন্ধে ইসরায়েলের প্রতি আহ্বান জানাই। তিনি বলেন, আমরা জোর দিয়ে বলতে চাই পূর্ব জেরুজালেম এখনও ফিলিস্তিন অঞ্চলের অংশ, এখানে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার আইন প্রযোজ্য।

আরও