ছাতকে গলায় ওড়না পেঁচানো অবস্থায় শিশুর মরদেহ উদ্ধার

ছাতকে গলায় ওড়না পেঁচানো অবস্থায় পাপিয়া বেগম (১১) নামের এক শিশুর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

সোমবার (১০মে) সন্ধ্যায় উপজেলার জাউয়াবাজার ইউনিয়নের কাইতকোনা গ্রামের একটি পরিত্যক্ত পুকুর থেকে এ শিশুর লাশ উদ্ধার করা হয়। সে কাইতকোনা গ্রামের আবু বক্করের মেয়ে।

জানা যায়, শনিবার (৮মে) ভোরে প্রতিদিনের মতো গ্রামে আম কুড়াতে বের হয় শিশু কন্যা পাপিয়া বেগম। এরপর থেকে সে আর বাড়ি ফেরেনি। পরিবারের লোকজন তার সন্ধানে অনেক খোঁজাখুঁজি করেও তার কোন সন্ধান পায়নি। বিষয়টি ইউপি চেয়ারম্যান মুরাদ হোসেন ও ওয়ার্ড মেম্বার মাহমুদ আলীকে অবহিত করেন। তিনদিন অতিবাহিত হওয়ার পর তার সন্ধান না পেয়ে সোমবার রাতে নিখোঁজের বিষয়ে থানায় সাধারণ ডায়েরি করার কথা ছিল।

কিন্তু সোমবার সন্ধ্যায় কাইতকোনা গ্রামের পার্শ্ববর্তী তাজ উদ্দিনের একটি পরিত্যক্ত পুকুরে শিশুর লাশ দেখতে পায় স্থানীয়রা। খবর পেয়ে রাতেই পুকুর থেকে লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। স্থানীয়দের ধারণা প্রতিদিন আম কুড়াতে যাওয়া ওই শিশুটির উপর কোন লম্পটের কু-নজর পড়েছে। তাই পাশবিকতা শেষে শিশু কন্যাটিকে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে হত্যা নিশ্চিত করে লাশ গুম করার চেষ্টা করেছে। এ হত্যার রহস্য উদঘাটনের জন্য পুলিশ প্রশাসনের প্রতি জোর দাবী জানিয়েছেন এলাকার সচেতন মহল।

লাশ উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জাউয়াবাজার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মুরাদ হোসেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে জাউয়াবাজার পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ এসআই সাজ্জাদুর রহমান জানান, গ্রামের একটি পুকুর থেকে গলায় ওড়না পেঁচানো অবস্থায় লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। ময়না তদন্তের রিপোর্ট পেলে মৃত্যুর কারণ জানা যাবে।

আরও