নিউইয়র্কে রাত পোহালেই ‘বিয়ানীবাজার সমিতি’র নির্বাচন

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে রাত পোহালেই রোববার অনুষ্ঠিত হবে যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসরত সিলেটের বিয়ানীবাজার উপজেলাবাসীদের ঐতিহ্যবাহী সামাজিক সংগঠন বাংলাদেশ বিয়ানীবাজার সামাজিক ও সাস্কৃতিক সমিতি ইউএসএ’র দ্বি-বার্ষিক (২০২২-২৩) নির্বাচন। এবারের নির্বাচনে ‘মিসবাহ-অপু’ এবং ‘মান্নান-মাহবুব’ দুই প্যানেল প্রতিদ্বন্দ্বিতায় অংশ নিচ্ছেন। ফলে সমিতির কার্যকরী পরিষদের ১৯ পদে এই দুই প্যানেলের ৩৮ প্রার্থীই এখন ভোটের মাঠে।

নির্বাচনে দুই প্যানেলসহ প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের মধ্যে কে বা কারা হাসবেন শেষ হাসি রোববার সেটাই নির্ধারণ করবেন সমিতির ৫ সহস্রাধিক ভোটার। তবে ধারণা করা হচ্ছে, এবারের নির্বাচনে দুই প্যানেলের প্রার্থীদের মধ্যে হাড্ডাহাডি ভোট যুদ্ধ হবে। তাছাড়া সমিতির ইতিহাসে প্রথমবারের মতো সর্বোচ্চ সংখ্যক ভোটার এবারের নির্বাচনে ভোটগ্রহণের সুযোগ পাওয়ায় আগে থেকে জয়-পরাজয় নিয়ে ধারণা করাও সম্ভবপর হচ্ছে না। তবে সমালোচকরা বলছেন, নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শেষে যারাই বিজয়ীর বেশে শেষ হাসি হাসবেন-তারা যুক্তরাষ্ট্রস্থ প্রবাসী বিয়ানীবাজারবাসীর প্রাণের এই সংগঠনের সার্বিক উন্নয়ন সাধণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবেন।

এদিকে, নির্বাচন ঘিরে ২২ দফা বিধি-নিষেধ নিয়ে প্রস্তুত ৫ সদস্যের নির্বাচন কমিশন। সব মিলিয়ে জমে উঠেছে নির্বাচন। সেই সাথে নির্বাচনী উত্তেজনাও চরমে। নির্বাচন কমিশন ঘোষিত তফসিল এবং কার্যকরী কমিটি, ইসি আর প্যানের দু’টির প্রতিনিধিদের যৌথ সিদ্ধান্ত মোতাবেক সিটির উডহ্যাভেন বুলেভার্ডের ‘জয়া হলে’ ১০ অক্টোবর ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। বিরতিহীন ভোট গ্রহন চলবে সকাল ৯টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত। নির্বাচনী কেন্দ্রে সবাইকে করোনা সংক্রমণসহ স্বাস্থ্য সুরক্ষায় কোভিড প্রটোকল মানতে হবে।

সমিতির সাবেক সভাপতি, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আব্দুর রাজ্জাকের (প্রধান নির্বাচন কমিশনার) নেতৃত্বে ৫ সদস্যের নির্বাচন কমিশন নির্বাচন পরিচালনা করছেন। কমিশনের অপর সদস্যরা হলেন যথাক্রমে হিফজুর এম রহমান, জালাল উদ্দিন আহমদ, কামাল চৌধুরী ও মোহাম্মদ হেলাল উদ্দিন। এবার সমিতির মোট ভোটার হচ্ছেন ৫ হাজার ৩৬৭জন। যা সমিতির ইতিহাসে রেকর্ড।

অন্যদিকে, বিয়ানীবাজার সমিতির নির্বাচনকে ঘিরে প্রবাসী বিয়ানীবাজারবাসীদের মাঝে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা লক্ষ্য করা গেছে। আগামী দিনে সমিতির নিজস্ব ভবন থেকে সকল কার্যক্রম পরিচালিত হলে সংগঠনের কার্যক্রম আরও চাঙ্গা হবে- এমন প্রত্যশায় নতুন নেতৃত্বের প্রতি অনেকেই আগ্রহী হয়ে উঠেছেন।

নির্বাচনে সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মিসবাহ আহমেদ ও বর্তমান সাংগঠনিক সম্পাদক রেজাউল আলম অপু’র নেতৃত্বে ‘মিসবাহ-অপু’ প্যানেল ‘আমরা নিষ্ঠা, সততা ও ঐক্যে বিশ্বাসী’ শ্লোগান নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। অপরদিকে সমিতির সাবেক উপদেষ্টা মোহাম্মদ আব্দুল মান্নান ও সদস্য নাজমুল হক মাহবুবের নেতৃত্বে ‘মান্নান-মাহবুব’ প্যানেল ‘সৃজনশীল, যোগ্য, সৎ, গতিশীল ও নতুন নেতৃত্বেও প্রত্যাশায়’ শ্লোগান নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। প্যানেল দুটির পক্ষ থেকে পৃথক পৃথকভাবে চলছে সভা-সমাবেশ আর ভোট প্রার্থনা।

‘মিসবাহ-অপু’ প্যানেলের প্রার্থীরা হলেন: সভাপতি- মিসবাহ আহমদ, সহ সভাপতি- আবুল ফজল (লিটন), সাধারণ সম্পাদক- রেজাউল আলম (অপু), সহ সাধারণ সম্পাদক- হোসেন আহমদ, কোষাধ্যক্ষ- পারভেজ ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক- মাহমুদুল কবির (রুবেল), সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক- মোহাম্মদ আব্দুল আলীম, দপ্তর সম্পাদক- শামসুল আলম (শিপলু), প্রচার সম্পাদক- মোহাম্মদ আজহার হুসেন (রিফাত), ক্রীড়া সম্পাদক- হাসান খান, সমাজকল্যাণ সম্পাদক- মোহাম্মদ কমর উদ্দিন, মহিলা সম্পাদক- হাফছা ফেরদৌস হেলেন এবং কার্যকরী সদস্য যথাক্রমে- সাজু আহমদ, সুহেল আহমদ, আবু রাসেল, ফয়ছল আলম, মোহাম্মদ সরোয়ার আহমদ,, মোহাম্মদ মেহেদী হাসান শিমুল ও ইকবাল হোসেন।

‘মান্নান-মাহবুব’ প্যানেলের প্রার্থীরা হলেন: সভাপতি- মোহাম্মদ আব্দুল মান্নান, সহ সভাপতি- ফয়জুর রহমান মিয়া, সাধারণ সম্পাদক- নাজমুল হক (মাহবুব), সহ সাধারণ সম্পাদক- আবদুন নূর হারুন, কোষাধ্যক্ষ- আব্দুল হান্নান দুখু, সাংগঠনিক সম্পাদক- আবু তৈয়ব মোহাম্মদ তালহা, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক- অনিক রাজ, দপ্তর সম্পাদক- আব্দুল হামিদ, প্রচার সম্পাদক- আব্দুল হাকিম, ক্রীড়া সম্পাদক- কিবরিয়া আহমেদ শাহিদ, সমাজকল্যাণ সম্পাদক- আকতরারুজ্জামান শাহীন মালিক, মহিলা সম্পাদক- নাজমা আহমেদ এবং কার্যকরী সদস্য যথাক্রমে- মোহাম্মদ খলকুর রহমান, জামাল হোসেন, মোহাম্মদ রাজ্জাক মুন্না, নূর উদ্দিন, ফখরুল হক, হোসেন আহমদ ও মোহাম্মদ আবু তাহের।

প্রসঙ্গত, নির্বাচন কমিশনের বিধি অনুযায়ী ‘মিসবাহ-অপু’ প্যানেলের সর্বশেষ নির্বাচনী সভা গত সোমবার (৪ অক্টোবর) ওজনপার্কের আল মদিনা পার্টি হলে অনুষ্ঠিত হয়। একই হলে মঙ্গলবার (৫ অক্টোবর) ‘মান্নান-মাহবুব’ প্যানেলের শেষ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

আরও