সিনিয়র ছাড়া ক্রিকেটার নেই, এটি ভুল প্রমাণ হয়েছে: সাকিব

তরুণদের দায়িত্ব দিলে তারাও ভালো খেলবে, তাদেরও সামর্থ্য আছে- বিভিন্ন সাক্ষাৎকারে প্রায়ই এমন কথা বলে থাকেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। চলতি নিউজিল্যান্ড সফরের প্রথম টেস্টে যেনো এটিই প্রমাণ হলো। যেখানে অনভিজ্ঞ এক দল নিয়েই নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ।

মাউন্ট মঙ্গানুইয়ে খেলা বাংলাদেশ দলে অধিনায়ক মুমিনুল হক, অভিজ্ঞ ব্যাটার মুশফিকুর রহিম, উইকেটরক্ষক ব্যাটার লিটন দাস ও অফস্পিনিং অলরাউন্ডার মেহেদি হাসান মিরাজ ছাড়া আর কারও ২০টি টেস্ট খেলারও অভিজ্ঞতা ছিল না। সেই তারাই এনে দিয়েছেন ইতিহাসগড়া পারফরম্যান্স।

সাকিব আল হাসান এটিকে ভালো লাগার দিক হিসেবেই দেখছেন। তার মতে, সবাই যেমন মনে করে সিনিয়র ক্রিকেটাররা আর ছাড়া খেলোয়াড় নেই, তা ভুল প্রমাণিত হয়েছে। শুক্রবার একটি বাণিজ্যিক চুক্তি সাক্ষর অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে এ বিষয়ে কথা বলেছেন সাকিব।

তার ভাষ্য, ‘এটা অবশ্যই ভালো লাগার দিক। মিডিয়ায় সবসময় যেটা মনে করে, আমরা চার-পাঁচজন ছাড়া খেলোয়াড় নেই। তো সেটা ভুল প্রমাণ হলো আমার ধারণা। তাদেরকে (অন্য ক্রিকেটারদের) যদি এভাবে দায়িত্ব দেওয়া হয়, তারা ভবিষ্যতে আরও ভালো করবে বলে আমি বিশ্বাস করি।’

এসময় নতুন বছরের উড়ন্ত শুরুকে সামনের দিনগুলোতেও ধরে রাখার ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী মন্তব্য করেন সাকিব। তার মতে, প্রথম টেস্টে বাংলাদেশ যতটা ভালো খেলেছে, তা খুব কম সময়ই দেখা যায়। তাই সামনে আরও ভালো কিছু করতে আশাবাদী তিনি।

সাকিব বলেছেন, ‘বছরের শুরুটা যেভাবে হলো, অবিশ্বাস্য। দলের প্রতিটা খেলোয়াড়, কোচিং স্টাফকে এর কৃতিত্ব দিতে হবে। সবাই যেভাবে চেষ্টা করেছে। কারণ আমাদের আগের বছরটি ভালো যায়নি। এ বছরটি আমাদের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ। শুরুটা যেহেতু এত ভালো হয়েছে। আশা করি সামনে আরও ভালো কিছু করতে পারবো।’

তিনি আরও যোগ করেন, ‘আসলে সত্যি বলতে এতো ভালো ক্রিকেট খেলা খুব কমসময়ই বাংলাদেশ খেলে থাকে। প্রতিটি খেলোয়াড়, কোচিং স্টাফকে এই কৃতিত্বটা দিতে হয়। তারা এতো চাপের মধ্যেও এরকম একটা কঠিন কন্ডিশনে গিয়ে এতো ভালো খেলেছে।’

আরও