বিএনপি দেশকে পাকিস্তান বানানোর ষড়যন্ত্র করছে: বাহাউদ্দিন নাছিম

বিএনপি বাংলাদেশকে পাকিস্তান বানানোর ষড়যন্ত্র চালিয়ে যাচ্ছে বলে অভিযোগ করে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম বলেছেন, ক্ষমতায় থাকতে তারা দেশের কল্যাণে একটি কাজ করতে পারেনি। আগামীর বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার স্বপ্ন, দর্শন তাদের নেই। তাদের একটাই দর্শন- আগুন সন্ত্রাস, হত্যা ও লাশের রাজনীতি করে ফায়দা লুটা।

শুক্রবার বিকালে রাজধানীর শ্যামপুর থানার আওতাধীন ৪৭, ৫১ ও ৫৪ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, বিএনপির-জামায়াতের অন্ধকার যুগে হত্যা, খুন মামুলি ব্যাপার ছিল। সেই খুনীদের দল সন্ত্রাসী কায়দায় মানুষের উপর, আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের উপর এমনকি সাংবাদিকদের উপর নিষ্ঠুরভাবে হামলা করছে। পঁচাত্তর, একাত্তরের মতো একই ভাষায়, একই ছন্দে সন্ত্রাসের রাজত্ব কাায়েমের ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে।

১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর বাংলাদেশের গণতন্ত্র ছিনতাই করা হয়েছিল উল্লেখ করে নাছিম বলেন, অবৈধ রাষ্ট্রপতি খুনী জিয়া গংরা ক্ষমতা দখল করে বাংলাদেশকে অন্ধকার যুগে নিয়ে গিয়েছিল। হাজার হাজার বীর মুক্তিযোদ্ধা, সামরিক বাহিনীর শত শত সৈনিক সদস্যদের নির্মমভাবে হত্যা করেছিল।

তিনি বলেন, খুন, গুম, অত্যাচারীরা শেখ হাসিনার সরকারকে বিতর্কিত করতে বিদেশে নালিশ, মিথ্যাচার করছে। অসাম্প্রদায়িক শক্তিকে লেলিয়ে দিয়ে দেশকে অস্থিতিশীল করতে চায়।

নাছিম বলেন, আওয়ামী লীগে সন্ত্রাসের জায়গা নেই। আওয়ামী লীগ মানুষের কল্যাণে কাজ করে। জনগণের সমর্থন আমাদের শক্তি, প্রাণ। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের ১৬ কোটি মানুষকে রক্ষার জন্য আওয়ামী লীগ রাজপথে থাকবে।

আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আফজাল হোসেন বলেছেন, বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ উন্নয়নের স্বপ্ন যাত্রায় রয়েছে। পদ্মাসেতু হয়েছে, পানির নিচে কর্ণফুলী টানেল হচ্ছে, স্যাটেলাইট যুগে প্রবেশ করেছি। বাংলাদেশ দুর্বার গতিতে সামনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর আইনের শাসন লঙ্ঘিত হয়েছে। বিচার বন্ধ করতে ইনডেমনিটি জারি হয়েছে। হত্যা, ষড়যন্ত্রের রাজনীতি হয়েছে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনার বাংলাদেশকে ফিরিয়ে আনতে রাজপথে আন্দোলন করতে হয়েছে। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা সেই বাংলাদেশ ফিরে পেয়েছি।

ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনের উদ্বোধন করেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু আহমেদ মন্নাফি। সম্মেলনে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন ও দফতর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া।

আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদ সদস্য ও সাবেক এমপি অ্যাডভোকেট সানজিদা খানম। শ্যামপুর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা হাজী মো. তোফাজ্জল হোসেনের সভাপতিত্বে সম্মেলনে প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবির কবির। সূত্র: ঢাকাটাইমস

আরও