জাতীয় পর্যায়ে চিত্রাংকন প্রতিযোগীতায় দ্বিতীয় হলো কুলাউড়ার রাতুল

বিশ্ব শিশু দিবস ও শিশু অধিকার সপ্তাহ ২০২২ উপলক্ষে জাতীয় পর্যায়ে চিত্রাংকন প্রতিযোগীতায় গ বিভাগে (৮ম থেকে ১০ম শ্রেণি পর্যন্ত) শিশুদের অধিকার সুরক্ষা বিষয়ের উপর চিত্র এঁকে দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেছে মৌলভীবাজার জেলার কুলাউড়ার রাতুল চন্দ্র দত্ত। সে কুলাউড়া উপজেলার নবীন চন্দ্র সরকারী মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী।

একই বিভাগে চিত্রাংকন প্রতিযোগীতায় প্রথম স্থান অর্জন করেছে ঢাকার সরকারী রুপনগর মডেল স্কুল এন্ড কলেজের ৮ম শ্রেণির শিক্ষার্থী মোছা. তানজিনা হোসেন। তৃতীয় স্থান অর্জন করেছে চট্টগ্রামের রাঙ্গামাটি সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রণির শিক্ষার্থী কংকনা চাকমা।

সোমবার (৩ অক্টোবর) দুপুরে বাংলাদেশ শিশু মিলনায়তনে বাংলাদেশ মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আয়োজনে প্রতিযোগীতা বিজয়ীদের হাতে সার্টিফিকেট ও পুরস্কার তুলে দেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব হাসানুজ্জামান কল্লোল, বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ শিশু একাডেমির চেয়ারম্যান লাকী ইনাম, ইউনিসেফের শেলডন ইয়ল্ট।

রাতুলের ছবি আঁকার হাতেকড়ি শুরু হয়, কুলাউড়া চারুহাট চিত্রাঙ্কন একাডেমির প্রশিক্ষক জিয়াউল হক জিয়ার কাছে। সে কুলাউড়া উপজেলা পর্যায়ে প্রায় জাতীয় পর্যায়ে সকল প্রতিযোগীতায় সেরা তিনের মধ্যে অবস্থান করতো। পরবর্তীতে চিত্রশিল্পী নঈম দিপুর কাছেও চিত্রাংকন প্রশিক্ষক নেয়।

তার এ সাফল্যে চারুহাট চিত্রাঙ্কন একাডেমি, নবীনচন্দ্র সরকারী মডেল উচ্চ বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ও চিত্রশিল্পী নঈম দিপু গর্বিত।

রাতুলের বাবা নবীন চন্দ্র সরকারী মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক রিপন চন্দ্র দত্ত ও মা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা সুপ্তা রাণী পাল।

ছেলের সাফল্যে গর্বিত বাবা-মা বলেন, ‘এ সাফল্যের পেছনে যাদের অবদান রয়েছে তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। রাতুল আগামীতেও লেখা পড়ার পাশাপাশি চিত্রাংকনে আরো বড় সফলতা অর্জন করুক এজন্য সকলের কাছে আশির্বাদ ও দোয়া কামনা করছি।’

 

আরও